অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ২রা শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৩রা জিলক্বদ, ১৪৩৯ হিজরী

অ্যাণ্ড্রু-লুইপার বেঁদের মেয়ে জোসনা

Print


বিনোদন প্রতিবেদক :
‘বাংলাদেশের গানকে বিশ্বে ছড়িয়ে দেবার এবং নতুন প্রজন্মের মধ্যে গানকে আবারো তুলে ধরার যে আন্তরিক নিবেদিত চেষ্টা-তাপস এবং মুন্নীর, এটা নিঃসন্দেহে দারুণ প্রশংসনীয়। যারা বাংলা গান শোনে না, জানে না-তাদের সামনেও এই ব্যাপক আয়োজনের গান পড়লে তারাও একবার শুনতে চাইবেন, বলবেন দেখি তো কী এটা। আর এভাবেই কিন্তু বাংলা ভাষাভাষীর বাইরে বাংলা গানের শ্রোতা-দর্শক বাড়বে, তারা বাংলাদেশকে জানবে। আর সেই জানানোর কাজটিই করছেন তাপস এবং মুন্নী। আমার সঙ্গে এই গানে লুইপা গেয়েছে। ও খুব ভালো গান গায়। এই গানেও লুইপা চমৎকার গেয়েছে।’ কথাগুলো বলেছেন প্লেব্যাক সম্রাট অ্যান্ড্রু কিশোর। ১৯৮৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের সবচেয়ে ব্যবসাসফল ছবি তোজাম্মেল হক বকুল পরিচালিত ‘বেঁদের মেয়ে জোসনা’। এর সবচেয়ে জনপ্রিয় গান ‘বেঁদের মেয়ে জোসনা আমায় কথা দিয়েছে, আসি আসি বলে জোসনা ফাঁকি দিয়েছে’ রি-কম্পোজিশন করা হয়েছে। গানটি এবার অ্যান্ড্রু কিশোরের সঙ্গে গেয়েছেন জিনিয়া জাফরিন লুইপা। তোজাম্মেল হক বকুলের লেখা এ গানটির সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা করেন আবু তাহের। এবার সঙ্গীতায়োজন করেছেন কৌশিক হোসেন তাপস। মূল গানটি গেয়েছিলেন রুনা লায়লা ও অ্যাণ্ড্রু কিশোর। অঞ্জু ঘোষ ও ইলিয়াস কাঞ্চনের লিপে যাওয়া এ গানটি আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা পেয়েছিলো। দীর্ঘ প্রায় ত্রিশ বছর পর ফের একই গানে কণ্ঠ দিলেন অ্যাণ্ড্রু কিশোর। তার সঙ্গে গাওয়া প্রসঙ্গে লুইপা বলেন, ‘অ্যান্ড্রু দাদার সঙ্গে গাইতে পেরেছি-এটা আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া। রুনা লায়লা ম্যাডামের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই আমি দাদার সঙ্গে গেয়েছি। আমি তাপস ভাই এবং মুন্নী ভাবীর প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞ এ কারণেই যে, আমি অতি সাধারণ একজন শিল্পী। কিন্তু এই প্লাটফরমে আমাকে আবারো সুযোগ করে দিয়েছেন তারা।’ আগামী ঈদুল ফিতরের দিন থেকে ‘গান বাংলা’ চ্যানেলে ‘উইন্ড অব চেঞ্জ-সিজন থ্রি’র প্রচার শুরু হবে। এর আগে একই অনুষ্ঠানে ‘হায়রে মানুষ রঙ্গিন ফানুষ’ গেয়েছিলেন অ্যান্ড্রু কিশোর। ‘আমার আপনার চেয়ে আপন যে জন’ গানটি গেয়েছিলেন লুইপা। প্রসঙ্গত, গত ১৫ এপ্রিল থেকে বিএফডিসিতে কৌশিক হোসেন তাপস ও ফারজানা মুন্নীর প্রযোজনায় ফের শুরু হয়েছে ‘উইন্ড অব চেঞ্জ’র রেকর্ডিং। ১৬ এপ্রিল রাতে অ্যান্ড্রু কিশোর ও লুইপার গানের রেকর্ডিং শেষ হয়। এই অনুষ্ঠানে সঙ্গীত ও অনুষ্ঠান পরিচালক হিসেবে রয়েছেন কৌশিক হোসেন তাপস, শিল্প নির্দেশক এবং অনুষ্ঠান পরিচালকেরও দায়িত্ব পালন করছেন ফারজানা মুন্নী।




মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.