অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ১লা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৭ই রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

আজ মরমী শিল্পী আব্দুল আলীমের ৪৫ তম মুত্যু দিবস

Print

শহিদুল ইসলাম : পল্লী গানের কিংবদন্তি শিল্পী আবদুল আলীম এর ৪৫ তম মুত্যু দিবস আজ। তিনি ১৯৭৪ সালের ৫ সেপ্টেম্বর ঢাকার পিজি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।
পল্লীগীতি,তাটিয়ালী,দেহতত্ব,মুর্শিদি ও ইসলামী গানের তার কোন জুরি ছিলো না।

শিল্পীর জন্ম ১৯৩১ সালের ২৭ জুলাই । জন্মস্থান পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার তালিবপুর গ্রামে ।
পেশাগত জীবনে তিনি ছিলেন ঢাকা সঙ্গীত কলেজের লোকগীতি বিভাগের অধ্যাপক। কথিত আছে অর্থনৈতিক অনটনের কারণে কোন শিক্ষকের কাছে তার গান শেখার সৌভাগ্য হয়নি। বিভিন্ন জনের কাছ থেকে শোনা গান তিনি নিজের মত করে গাইতেন।
আব্দুল আলীমের অন্যতম গানগুলো হলো নাইয়ারে,সর্বনাশা পদ্ম নদী,হলুদিয়া পাখি,মনে বড় আশা ছিলো যাবো মদীনায়,আল্লা মেঘ দে ইত্যাদি।
জানা যায়,তিনি বার্মায় একটি অনুষ্ঠানে গাইছিলেন আল্লা মেঘ দে গানটি,আর অমনি শুরু হলো মুষল ধারার বৃষ্টি । সেদিন বার্মায় বেশ সারা পরেছিলো সেই গানে।

বাংলাদেশের প্রথম চলচ্চিত্র ‘মুখ ও মুখোশ’ এ গান করেছেন আব্দুল আলীম। এছাড়া বিভিন্ন বাংলা চলচ্চিত্রে তার অসখ্য গান রয়েছে। তার ৫ শতাধিক গান রেকর্ড করা হয়েছে।

মরমী শিল্পী আব্দুল আলীম একুশে পদক, পূর্বাণী চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি পুরস্কার পেয়েছেন। বাংলাদেশ সরকার ১৯৭৭ সালে তাকে মরণোত্তর একুশে পদক প্রদান করে সম্মানিত করে।
মরমী শিল্পীর মৃত্যু দিবসে শ্রদ্ধারভরে তাকে স্মরন করি।




মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.