অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৩ই মহররম, ১৪৪০ হিজরী

আসছে উন্নয়নশীল দেশের ঘোষণা

Print

বিশেষ প্রতিনিধি : নিম্নমধ্য আয়ের দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল (ডেভেলপিং) দেশে পরিণত হয়েছে বাংলাদেশ। বিশ্বের ইকোনমিক ও সোশ্যাল কাউন্সিল চলতি মাসেই উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেবে। এই স্বীকৃতিকে কেন্দ্র করে আগামী ২২ মার্চ রাজধানীর আগারগাঁওয়ের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয়ভাবে উদ্যাপন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপস্থিত থাকবেন।
শর্ত অনুযায়ী একটি দেশকে উন্নয়নশীল হতে হলে সেই দেশকে প্রথমত, মাথাপিছু আয় ১ হাজার ২৪২ মার্কিন ডলার হতে হয়, বর্তমানে বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় ১ হাজার ৬১০ মার্কিন ডলার। দ্বিতীয়ত, মানবসম্পদের উন্নয়ন অর্থাৎ দেশের ৬৬ ভাগ মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নত হতে হয়, বর্তমানে বাংলাদেশের ৭০ ভাগ মানুষের জীবনযাত্রার মানের উন্নতি হয়েছে। আর তৃতীয়ত, অর্থনৈতিকভাবে ভঙ্গুর না হওয়ার মাত্রা ৩০ ভাগ হতে হবে, বাংলাদেশে এ মুহূর্তে তা ২৬ ভাগ অর্জন করেছে। বিশ্বের ইকোনমিক ও সোস্যাল কাউন্সিল উল্লিখিত তিনটি বিষয় বিবেচনা করে কোনো দেশকে নিম্নমধ্য আয়ের দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল (ডেভেলপিং) দেশে পরিণত হওয়ার ঘোষণা দেয়।
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ডেভেলপিং কান্ট্রি হতে যে তিনটি শর্ত পূরণ করতে হয় তা বাংলাদেশ অর্জন করেছে। আশা করা হচ্ছে জাতিসংঘ কাউন্সিলের মূল্যায়ন কমিটির সভা এ মাসেই অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল (ডেভেলপিং) দেশ হিসেবে ঘোষণার বিষয়টি আলোচিত হবে। আশা করা যায় ওই সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ তৃতীয় বিবেচ্য বিষয়টি সফলভাবে অর্জন করবে এবং কাউন্সিল বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে ঘোষণা করবে।
জানা গেছে, উন্নয়নশীল দেশের কাতারে বাংলাদেশের প্রবেশ এখন সময়ের ব্যাপার। নিম্নমধ্যম আয়ের দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল দেশে পৌঁছতে বিশ্বের ইকোনমিক ও সোস্যাল কাউন্সিলের তিনটি সূচকের সব শর্তই বাংলাদেশ পূরণ করেছে। ফলে আগামী ১২-১৬ মার্চের মধ্যে বাংলাদেশের জন্য বহুল প্রত্যাশিত এ সুসংবাদটি আসতে পারে। মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। পাশাপাশি উত্তরণ-পরবর্তী রপ্তানি খাতে এর প্রভাব এবং দাতাদের ঋণের উচ্চসুদ আরোপের বিষয়টিও তুলে ধরা হয়। অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) পক্ষ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের খবর প্রতিবেদন আকারে উপস্থাপন করার পর তাৎক্ষণিকভাবে এই সুসংবাদ শুনে প্রধানমন্ত্রী উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।
প্রধানমন্ত্রীর কাছে দেওয়া ইআরডির প্রস্তাবিত অবহিতকরণ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে- ডেভেলপিং কান্ট্রিত পরিণত হতে যে তিনটি শর্ত পূরণ করতে হয়, তা বাংলাদেশ অর্জন করেছে। প্রথমত, মাথাপিছু আয় ১ হাজার ২৪২ মার্কিন ডলার হতে হয়, বর্তমানে বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় ১ হাজার ৬১০ মার্কিন ডলার। দ্বিতীয়ত, মানবসম্পদের উন্নয়ন অর্থাৎ দেশের ৬৬ ভাগ মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নত হতে হয়, বর্তমানে বাংলাদেশের ৭২ দশমিক ৯ ভাগ মানুষের জীবনযাত্রার মানের উন্নতি হয়েছে। তৃতীয়ত, অর্থনৈতিকভাবে ভঙ্গুর না হওয়ার মাত্রা ৩২ ভাগের নিচে হতে হয়, বাংলাদেশে এ মুহূর্তে তা ২৬ ভাগ। বিশ্বের ইকোনমিক ও সোস্যাল কাউন্সিল এ তিনটি বিষয় বিবেচনা করে কোনো দেশকে নিম্নমধ্যম আয়ের দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল (ডেভেলপিং) দেশে পরিণত হওয়ার ঘোষণা দেয়।




মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.