অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ১২ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯শে শাবান, ১৪৪০ হিজরী

জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী মিশনে সেনাসদস্যদের গৌরবজ্জ্বল ভুমিকা দেশের ভাবমূর্তি বিশ্বে উজ্জ্বল করেছে : প্রধানমন্ত্রী

Print

স্টাফ রিপোর্টার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কর্মের প্রশংসা করে বলেন, জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী মিশনে সেনাসদস্যদের গৌরবজ্জ্বল ভুমিকা দেশের ভাবমূর্তি বিশ্বে উজ্জ্বল করেছে। তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অফিসারদের দেশের গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রেখে উন্নয়নের ধারবাহিকতা রক্ষায় যোগ্য, দক্ষ, কর্মক্ষম এবং দেশপ্রেমিক নেতৃত্বের ওপর আস্থাশীল হওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।

তিনি বলেন, একটি সুশৃঙ্খল এবং শক্তিশালী সেনাবাহিনী দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা এবং সুসংহতকরণে গুরুত্বপূর্ণ সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে। যারা সুশিক্ষিত, কর্মক্ষম, সচেতন, বুদ্ধিমান এবং সর্বোপরি গণতন্ত্রকে সুসংহত করার জন্য দৃঢ় প্রত্যয়ের অধিকারী এরূপ যোগ্য অফিসারদের কাছে নেতৃত্ব ন্যস্ত করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রবিবার  সকালে ঢাকা সেনানিবাসে ‘সেনাসদরে নির্বাচনী পর্ষদে  প্রদত্ত ভাষণে এসব কথা বলেন।

সেনাবাহিনীর উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনাদের সবসময় লক্ষ্য রাখতে হবে, যাতে সেনাবাহিনীর নেতৃত্ব ন্যস্ত হয় তাঁদেরই হাতে ,যাঁরা দেশপ্রেমিক ও মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী।

অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ দেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ । অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, প্রতিরক্ষা সচিব আখতার হোসেন ভূইয়া, সশস্ত্রবাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার লেফটেন্যান্ট জেলারেল মাহফুজুর রহমান ।  এসময় এডজুট্যান্ট জেনারেল,মেজর জেনারেল এস এম মতিউর রহমান জুয়েলসহ মেজর জেনারেল পদ মর্যাদার সেনা কর্মকর্তাগণ  উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি আনন্দিত যে, সেনাবাহিনীর অফিসারদের পদোন্নতির জন্য ‘টার্বুলেটেড রেকর্ড এন্ড কমপারেটিভ ইভালুয়েশন (টিআরএসিই)’ এর মত একটি আধুনিক পদ্ধতির প্রচলন করা হয়েছে। যা পেশাগত দক্ষতার বিভিন্ন দিকের তুলনামূলক মূল্যায়ন প্রকাশ করে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে সমস্ত অফিসার সামরিক জীবনের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে যোগ্য নেতৃত্ব প্রদানে সফল হয়েছেন পদোন্নতির ক্ষেত্রে তাদেরকে বিবেচনায় আনতে হবে। তিনি বলেন, তাঁদের শিক্ষা, মনোভাব, সামাজিকতা, চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য নিরীক্ষা করেই পদোন্নতি প্রদান করতে হবে। পদোন্নতির ক্ষেত্রে উন্নত পেশাগত মান ও যোগ্যতাসম্পন্ন অফিসারদের অবশ্যই অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত।

প্রধানমন্ত্রী  পদোন্নতির ক্ষেত্রে শৃঙ্খলা, সততা, বিশ্বস্ততা এবং আনুগত্যের উপরও গুরুত্বারোপ করেন ।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.