অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৩০শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী

ঝালকাঠিতে ইউপি সদস্যকে হত্যার অভিযোগ

Print

ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠিতে এক ইউপি সদস্যকে পিটিয়ে হত্যার দায়ে পুলিশের এক উপপরিদর্শকের নামে মামলা হয়েছে। নিহত ইউপি সদস্যের নাম খলিলুর রহমান । তার বাড়ী সদর উপজেলার লেশপ্রতাপ গ্রামে।
নিহতের স্ত্রী জানায়,সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) দেলোয়ার হোসেন এ হতার ঘটনা ঘটিয়েছেন। এব্যাপারে রোববার নাজমা বেগম বাদী হয়ে ঝালকাঠির জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ আদালতে এ মামলা দায়ের করেছেন।
আদালতের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মো. ইখতিয়ারুল ইসলাম মল্লিক দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) বরিশাল অঞ্চলকে তদন্ত করে আগামী ২৬ নভেম্বরের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। মামলায় এসআই দেলোয়ার ছাড়াও আরো ৭ জনকে আসামী করা হয়।
নিহতের স্ত্রী ও মামলার বাদি নাজমা বেগমের অভিযোগ, তার স্বামীকে একটি মিথ্যা মামলায় গ্রেফতাররের ভয় দেখিয়ে উপ-পরিদর্শক (এসআই) দেলোয়ার হোসেন এক লাখ টাকা দাবি করে ২৫ হাজার টাকা নিয়েছেন। এর পরও এসআই দেলোয়ার বাকি টাকার জন্য আমার স্বামীকে তার বাসায় ডেকে নিয়ে নির্মম ভাবে পিটিয়ে পাঁ ভেঙ্গে হাসপাতালে ভর্তি করান। মিথ্যা মামলায় ঘুষের টাকা নিয়েও স্বামীকে নির্যাতনে হত্যা এবং সন্তানদের এতিম করার জন্য এসআই দেলোয়ারের বিচার দাবি করেন নিহতের স্ত্রী নাজমা বেগম।

বাদী পক্ষের আইনজীবি মনিক আচার্য্য জানান, বাসন্ডা ইউনিয়নের লেশপ্রতাপ গ্রামের এক ব্যবসায়ী স্থানীয় ইউপি সদস্য ও খলিলুর রহমান মন্টুর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় এসআই দেলোয়ার হোসেন ইউপি সদস্য মন্টুর কাছে গত ১৪ সেপ্টেম্বর একলাখ টাকা ঘুষ দাবি করেন। দাবিকৃত টাকা না দেওয়ায় খলিলুর রহমান মন্টুকে বেদম মারধর করেন ওই এসআই। এতে তাঁর একটি পা ভেঙে যায়। এ অবস্থায় তাকে গ্রেফতার করে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের কারা শাখায় ভর্তি করা হয়। গত ৩ অক্টোবর হাসপাতালের কারা শাখায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয় ওই ইউপি সদস্য।
ঝানিহত লকাঠি সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) দেলোয়ার হোসেন জানান, ইউপি সদস্য খলিলুর রহমান মন্টুর বিরুদ্ধে একটি চাঁদাবাজির মামলা থাকায় তাকে গ্রেফতার করা হয়।
কেন তার হাত পা ভাঙ্গা এর কোস সদুত্তর দিতে পারেনি উপপরিদর্শক (এসআই) দেলোয়ার হোসেন ।




মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.