অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৬ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১০ই সফর, ১৪৪০ হিজরী

তীব্র শীতেও আমরণ অনশনে মাদ্রাসাশিক্ষকরা, অসুস্থ ৪০

Print

নিজস্ব প্রতিবেদক: তীব্র শীতেও নিবন্ধন পাওয়া স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা জাতীয়করণের দাবিতে আমরণ অনশন কর্মসূচির দ্বিতীয়দিন পালন করছেন মাদ্রাসাশিক্ষকরা। তীব্র শীতে খোলা আকাশের নিচে আন্দোলন করতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন প্রায় ৪০ শিক্ষক। দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন শিক্ষকরা।
১ জানুয়ারি থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসা শিক্ষকরা গত মঙ্গলবার থেকে আমরণ অনশন কর্মসূচি দেন। শিক্ষকরা বলেন, শিক্ষকতায় এসেছি। বেতন-ভাতা না পাওয়ায় পরিবারের ভরণপোষণের খরচ চালতে পারছি না। বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা জাতীয়করণ করতে হবে।
শিক্ষকরা বলেন, তীব্র শীতের মধ্যে রাস্তায় বসে আন্দোলন করলেও সরকারের পক্ষ থেকে কোনো আশ্বাস মেলেনি। অথচ আমাদের পাশেই আন্দোলন করছিলেন নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা। প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাসে তারা আন্দোলন স্থগিত করেছে। আমরা একই দেশের নাগরিক। তাদের মতোই শিক্ষক। কিন্তু আমাদের দিকে কারো কোনো দৃষ্টি নেই। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কোনো প্রতিনিধি যোগাযোগও করেননি। এ কারণে বাধ্য হয়ে আমরণ অনশন করছি। দাবি আদায় ছাড়া রাজপথ ছাড়বেন না বলেও জানান তারা।
বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসাশিক্ষক সমিতির সভাপতি আলহাজ ক্বারী রুহুল আমিন চৌধুরী বলেন, মাদরাসাশিক্ষকরা দীর্ঘদিন ধরে মানবেতর জীবন যাপন করছে। তাই বাধ্য হয়ে ঘর-সংসার ছেড়ে টানা আটদিন অবস্থান ধর্মঘটের পর দুদিন ধরে অনশনে নেমেছি। আশা করি অতিসত্বর সরকার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করে সুনির্দিষ্ট ঘোষণা দেবে।
সমিতির মহাসচিব মোখলেছুর রহমান বলেন, গত ১০ নভেম্বর মানববন্ধনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দেওয়ার পর ৩১ ডিসেম্বর জাতীয়করণের ঘোষণার আলটিমেটাম দিয়ে কর্মসূচি স্থগিত করি। কিন্তু বছর শেষ হওয়া পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত না নিলে আমরা ১ জানুয়ারি থেকে অবস্থান কর্মসূচি পালন করি। দাবি না মানায় ৯ জানুয়ারি থেকে আমরণ অনশন পালন করছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রী জাতীয়করণের ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত আমরণ অনশন চলবে।




মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.