অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১০ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

ভাত নয়, ঘাস খাচ্ছেন তারা

Print

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের উত্তর প্রদেশের লালওয়াদি গ্রাম। দুর্ভিক্ষের কষাঘাতে জর্জরিত এই গ্রামটি। ভাত না পেয়ে ঘাস খেয়ে কোনো রকমে দিন কাটাতে হচ্ছে এই গ্রামের বাসিন্দাদের। গ্রামের প্রসাদ নামের এক ব্যক্তি এনডিটিভিকে বলেন, আমরা সাধারণত গবাদিপশুকে ঘাস খাওয়াই। কিন্তু বর্তমানে এটি খাওয়া ছাড়া আমাদের কোনো উপায় নেই।

বুন্দেলখন্দের এই গ্রামে খরার কারণে তিনটি আবাদী ফসল নষ্ট হয়ে গেছে। ফলে এই গ্রামের বাসিন্দাদের দুর্বিষহ জীবন-যাপন করতে হচ্ছে। খেতে হচ্ছে ঘাস। পালংশাকের মত দেখতে লম্বা ওই ঘাস অনেকের কাছেই সেমাই নামে পরিচিত। হালকা পানি, তেল ও লবণ দিয়ে ঘাসগুলো সিদ্ধ করা হয়। এরপর এই ঘাস দিয়ে রুটি বানিয়ে বাচ্চাদের খেতে দেয়া হয়।

গ্রামের বাসিন্দাদের এই দুর্ভোগের পেছনে রয়েছে পরিবেশ বিপর্যয়ের কারণে সৃষ্ট খরা। এছাড়া অনাবৃষ্টি ও খরার কারণেও গত দুই মৌসুমে তিনবার এই গ্রামের আবাদি জমির ফসল নষ্ট হয়ে গেছে।

এই গ্রামে খরার প্রভাব অত্যন্ত তীব্র আকার ধারণ করেছে। জমিতে আবাদ না হওয়ায় দিনে তিন বেলা খাবারের পরিবর্তে তারা এখন দুই বেলা খেয়ে থাকেন। খাবারের মানও অত্যন্ত নিম্ন। ঘাসের এই রুটি খাওয়ার মাধ্যমে তারা যে খাবারের চরম সংকটে পৌঁছে গেছেন সেই চিত্রই উঠে এসেছে।

চরম দুর্ভিক্ষের মধ্যে এই গ্রামের বাসিন্দারা কোনো ধরনের সরকারি সুযোগ সুবিধা পাননি বলে অভিযোগ করেছেন। তারা বলেন, নতুন করে কোনো রেশন কার্ড পায়নি। শুধু বারবার শুনি কার্ড দেয়া হবে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.