অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৬ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী

মুদ্রানীতি বাস্তবায়নই বড় চ্যালেঞ্জ

Print

দৈনিক চিত্র প্রতিবেদক:
কাঙ্ক্ষিত প্রবৃদ্ধি অর্জন, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ ও উৎপাদনমুখী খাতে ঋণপ্রবাহ বাড়ানোর বিষয়টি অগ্রাধিকার দিয়ে চলতি অর্থবছরের (২০১৮-১৯) দ্বিতীয়ার্ধের মুদ্রানীতি (জানুয়ারি-জুন, ২০১৯) ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। নতুন এ মুদ্রানীতিকে গতানুগতিক বললেও তা বাস্তবায়ন চ্যালেঞ্জিং হবে বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদ, ব্যবসায়ী ও ব্যাংকাররা।
বুধবার এ মুদ্রানীতি ঘোষণা করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। চলতি অর্থবছরের জুলাই-জুন সময়ে মুদ্রা ও অর্থনীতি কার্যক্রমের সামগ্রিক সফলতার প্রেক্ষাপটে নতুন মুদ্রানীতিতে বড় কোনো পরিবর্তন আনার প্রয়োজন হয়নি বলে জানান গভর্নর। নতুন মুদ্রানীতিতে রেপো ও রিভার্স রেপো সুদহার ৬ শতাংশ এবং ৪ দশমিক ৭৫ শতাংশে অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। এছাড়া অভ্যন্তরীণ ঋণের প্রবৃদ্ধি ১৫ দশমিক ৯ শতাংশে অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। তবে অর্থবছরের প্রথমার্ধের মুদ্রানীতির গতিধারা বিবেচনায় নিয়ে নতুন মুদ্রানীতিতে জুন শেষে সরকারি-বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধি আগের ৮ দশমিক ৫ এবং ১৬ দশমিক ৮ শতাংশ থেকে সংশোধন করে যথাক্রমে ১০ দশমিক ৯ ও ১৬ দশমিক ৫ শতাংশ ধরা হয়েছে বলে জানান ফজলে কবির।

মুদ্রানীতিতে যেসব লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে তা মোটামুটি ঠিক থাকলেও এটি বাস্তবায়নই মূল চ্যালেঞ্জ বলে মনে করছেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অর্থ উপদেষ্টা এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম। তিনি দৈনিক চিত্রকে বলেন, মুদ্রানীতিতে দু-একটি বিষয়ে কিছু লক্ষ্যমাত্রায় পরিবর্তন আনা হলেও তেমন নতুন কিছু নেই।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.