অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জমাদিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

রস মেলা:নতুন প্রজন্মের কাছে ফিরে আসছে বাঙালির সাংস্কৃতিক ইতিহাস

Print

দৈনিক চিত্র প্রতিবেদক:
গ্রামে শীতের সকাল মানেই মাঠে শিশির জড়ানো ফসলের আইল মাড়িয়ে খেজুর গাছ থেকে রসের পাতিল নামিয়ে এনে রস খাওয়া, রস জাল দিয়ে গুড় বানানো, গুড়ের পাটালি আর রস দিয়ে মজার মজার নানান পদের পিঠা তৈরি। কিন্তু শহুরে জীবনে এটার স্বাদ পাওয়া এক প্রকার দূরুহ বটে।
কিন্তু রাজধানীর বুকে সকালবেলা মিষ্টি রসের চুমুকে গলা ভেজানো রীতিমত শৈশবে ফিরিয়ে মাতোয়ারা করে তোলে। এমনি একটি সকাল গেলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের বকুলতলায়।
শুক্রবার সকাল ৮টা বেলা ১২টা পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের বকুলতলায় বসে এই রসের মেলা। রঙ্গে ভরা বঙ্গের সভাপতি অধ্যাপক হায়াৎ মামুদের সভাপতিত্বে রস মেলার উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান।
উপাচার্য বলেন, ‘গ্রামের একসময় একমাত্র পানীয় ছিলো খেজুরের রস। যা আজ হারিয়ে যেতে বসেছে। এটি ধরে রাখতেই এ মেলার আয়োজন। আমাদের এ কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হবে।’ চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক নিসার হোসেন বলেন, ‘রসিক, রসালু, রসপ্রিয় বহু শব্দ জড়িয়ে আছে বাঙালির নামের সঙ্গে। রসের সঙ্গে বাঙালির খুব গভীর সম্পর্ক। রস নিয়ে চর্চা আমাদের চলবেই।’

বাংলা একাডেমির ফোকলোর বিভাগের সাবেক পরিচালক শাহিদা আক্তার বলেন, ‘রস মেলার মাধ্যমে আমরা শৈশব ফিরে পেয়েছি। এ মেলার মাধ্যমে আমাদের সাংস্কৃতিক ইতিহাস নতুন প্রজন্মের কাছে ফিরে আসে।’‘রঙ্গে ভরা বঙ্গ’ এর পরিচালক ইমরান উজ জামান বলেন, ‘শহুরে জীবনধারার ক্রমপরিবর্তনে আমরা আমাদের ইতিহাস, লোকজ সংস্কৃতি, লোকাচার ও জীবনবোধের অনেক অনুষঙ্গই হারিয়ে ফেলছি। এ উৎসব আমাদের প্রবাহমান বাংলার লোকাচার ও জীবনবোধ বাঁচিয়ে রাখার প্রচেষ্টা।’

উদ্বোধনী আয়োজনে ছিলেন ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভের চারুকলার অধ্যাপক আলাউদ্দিন, আলোকচিত্র সাংবাদিক বুলবুল আহমেদ, আলোকচিত্রী মোহাম্মদ আসাদ ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মেহেদী হাসান খান বাবু।

রস উৎসবে খেজুরের টাটকা রসে গলা ভেজানোর সুযোগ হয়েছে অনেকের। বাবা-মায়ের সঙ্গে অনেক শিশুরাও এসেছিলো মিষ্টি রসের স্বাদ নিতে। রস খাওয়ানোর পাশাপাশি খেজুরের গুড়, খৈ ও মুড়ি দিয়ে অতিথিদের আপ্যায়ন করা হয়। খাবার-দাবারের পাশাপাশি পরিবেশিত হয় টাঙ্গাইলের অর্জুনার খোকা মন্ডলের নাচারির দলের ঐতিহাসিক মনসা মঙ্গলের বেহুলার ভাসান।

দৈনিক চিত্র/এমএইচ




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.