অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৩০শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী

সহজেই চিটাগাংকে হারাল ঢাকা

Print

দৈনিক চিত্র রিপোর্ট : দিনের দ্বিতীয় ম্যাচটি লো স্কোরিং এবং শেষ মুহূর্তে প্রতিদ্বন্দ্বীতাটা যেন নিয়তিই হয়ে দাঁড়িয়েছিল। এবার সেই ধারা ভাঙলো ঢাকা ডাইনামাইটস। লো স্কোরিং ম্যাচ হলো ঠিকই। তবে কোন নাটকীয়তার সুযোগ আর দেয়নি ঢাকা। হেসে-খেলেই তারা ম্যাচ জিতে নিল ৬ উইকেটের ব্যবধানে। আর এ নিয়ে চার ম্যাচের তিনটিতেই হারলো চিটাগাং।

টস জিতে ব্যাট করতে নামা চিটাগাংকে ৯২ রানে অলআউট করে দিয়ে ঢাকা জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় ১৭.১ওভারে ৪ উইকেট হারিয়েই। ওপেনার সাদমান ইসলাম করেন সর্বোচ্চ ৪৪ রান। আউট হলেন সৈকত আলি, নাসির জামশেদ, নাসির হোসেন এবং সাদমান ইসলাম।

মাত্র ৯২ রান নিয়ে যেন লড়াইয়ের মানসিকতাই হারিয়ে ফেলেছিল তামিমের চিটাগাং। মোহাম্মদ আমির, সাঈদ আজমল, শফিউল ইসলাম কিংবা এনামুল জুনিয়রদের মত বোলার দিয়েও লড়াইটা জমিয়ে তুলতে পারেনি তারা।

প্রথম উইকেট জুটিতেই সৈকত আলি আর সাদমান ইসলাম মিলে তুলে ফেলেন ৪৫ রান। এরপর নাসির জামশেদ আর সাদমান মিলে দলের রান নিয়ে যান ৭৮ পর্যন্ত। নাসির জামশেদ ১২ রান করে আউট হয়ে গেলে মাঠে নামেন নাসির হোসেন। তবে তিনি ২ রান করে ফিরে যান নাঈম ইসলামের বলে বোল্ড হয়ে।

চতুর্থ উইকেট হিসেবে ওপেনার সাদমান ইসলামকে বোল্ড করে প্যাভিলিয়নে পাঠান নাঈম ইসলাম। ৪৭ বলে ৪৫ রান করে আউট হন সাদমান। শেষ পর্যন্ত শফিউল ইসলামকে বাউন্ডারি মেরে ঢাকাকে দ্বিতীয় জয় এনে দেন কুমার সাঙ্গাকারা।

ঢাকার বোলার নাঈম ইসলাম নেন ৩টি উইকেট। শফিউল নেন একটি। এর আগে নাঈম ইসলামের অপরাজিত ২৯ রান সত্ত্বেও চিটাগায় অলআউট হয়ে যায় ৯২ রানে। দিলশান করেন ২০ রান। ৩টি করে উইকেট নিয়েছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান এবং নাসির হোসেন।




মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.