অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৯ই রমযান, ১৪৩৯ হিজরী

সারাদেশে বজ্রপাতে ২৩ জনের মৃত্যু 

Print
 নিজস্ব প্রতিবেদক : সারাদেশে বজ্রপাতে ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।   বুধবার সকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত এ বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।
হবিগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, হবিগঞ্জে পৃথক বজ্রপাতে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরা হলেন- নবীগঞ্জ উপজেলার বৈলাকপুর গ্রামের হরিচরণ পালের ছেলে নারায়ণ পাল, পানিউমদা ঘুঙ্গিয়া জুড়ি হাওরের সুজন মোড়া (৪০), আমড়াখাই গ্রামের হাবিব উল্লার ছেলে আবু তালিব, মাধবপুর উপজেলার পিয়াইম গ্রামের রামচরণ সরকারের ছেলে জহরলাল সরকার, লাখাই উপজেলার তেঘরিয়া গ্রামের জাহেদ মিয়ার ছেলে চকি মিয়া, সুনামগঞ্জের ধাইপুর গ্রামের বসন্ত দাসের ছেলে স্বপন দাস ও সিরাজগঞ্জের নওসের মিয়ার ছেলে জয়নাল মিয়া। এছাড়া বজ্রপাতে আহত হয়েছেন ৪ জন।ধান ক্ষেতে কাজের সময় এরা বজ্রপাতে মারা যান।
এদিকে লাখাই উপজেলার তেঘরিয়া হাওরে ধান কাটার সময় বজ্রপাতে গুরুতর আহত হন চকি মিয়া। গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
এছাড়া নবীগঞ্জ উপজেলায় পৃথক স্থানে বজ্রপাতে তিন কৃষক নিহত হয়েছেন। করগাঁও ও বড় ভাকৈর পশ্চিম ইউনিয়নের স্থানীয় হাওরে ধান কাটতে গেলে নারায়ণ পাল ও আবু তালিব বজ্রপাতের শিকার হন। পরে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।
এদিকে হাওরে ধান কাটতে গিয়ে বজ্রপাতে সুজন  (২৭) এক চা শ্রমিক মারা গেছে।  বিকেল ৫টায় হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। সুজন মোড়া চুনারুঘাট উপজেলার জোয়ালভাঙ্গা চা বাগানের কানাই মোড়ার ছেলে।
রাজশাহী  প্রতিনিধি জানায়, রাজশাহীর তানোর উপজেলায় বজ্রপাতে ৩ জন মারা গেছে। নিহতরা হলেন- বাতাসপুর গ্রামের কৃষক আনসার আলী (৩০), দুবইল পূর্বপাড়ার কিশোর সোহাগ আলী (১৬) ও চকরতিরামপুরের এলিনা মুরমু (৩৫)। এছাড়া  বাতাসপুর গ্রামের আনন্দ সাহা (৩২) ও লিটন চন্দ্র সাহা (৩০) বজ্রপাতে আহত হয়েছেন।
ফুলছড়ি (গাইবন্ধা) প্রতিনিধি জানান, গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলায় বজ্রপাতে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার উদাখালি ইউনিয়নের পূর্ব ছালুয়া গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত কৃষকের নাম  মহর আলী (৩৫) । সে  উপজেলার উড়িয়া ইউনিয়নের কাবিলপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রশিদ মিয়ার পুত্র।
সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, সোনারগাঁয়ের জামপুরের তিলাবো গ্রামে বজ্রপাতে কুলফী আক্তার (৮) নামে এক স্কুলছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। বুধবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত কুলফী বাছাবো সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণির ছাত্রী।
সুনামগঞ্জ  প্রতিনিধি জানান, সুনামগঞ্জের হাওরে পৃথক বজ্রপাতের ঘটনায় দুই কৃষক নিহত হয়েছেন। বুধবার দুপুরে জেলার শাল্লা উপজেলার কালিয়াকুটা ও ধর্মপাশা উপজেলার কাইল্যানি হাওরে এই ঘটনা ঘটে।
শাল্লা উপজেলার কালীকুটা হাওরে নিহত হয়েছেন কৃষক আলমগীর হোসেন (২৩)। তিনি উপজেলার আটগাঁও ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের ইদ্রিস আলীর (যুক্তি মিয়া) ছেলে। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে কালিয়াকুটা হাওর থেকে বাড়িতে আসার সময় বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থলেই তিনি নিহত হন।
এছাড়া  ধর্মপাশায় বজ্রপাতে জুয়েল মিয়া (১৮) নামের এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। জুয়েল মিয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের দুর্বাকান্দা গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে। বুধবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার কাইল্যানি হাওরে এ ঘটনা ঘটে।
অপরদিকে একই সময়ে ধর্মপাশা সদর ইউনিয়নের বাহুটিয়াকান্দা গ্রামে বজ্রপাতে দিলহজ (২৪) নামের এক কৃষক ধান মাড়াইয়ের সময় আহত হয়েছে। দিলহজ বাহুটিয়াকান্দা গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে। তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।
জামালপুর প্রতিনিধি জানান, জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় বজ্রপাতে একজন মারা গেছে। নিহতের নাম  মো. হাবিবুর রহমান (৪৭)। তিনি মৌলভীর চরের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে।
ময়মনসিংহ প্রতিনিধি  জানায়, ময়মনসিংহের সদর উপজেলায় বজ্রপাতে  একজন মারা গেছে। নিহতের নাম আলাল উদ্দিন (৬০) । এ সময় মুক্তাগাছায় আটজন আহত হন। বুধবার দুপুরে উপজেলার চর নীলক্ষীয়ায় এ ঘটনা ঘটে।
 মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, দৌলতপুর উপজেলায় বুধবার বজ্রপাতে এক শিশুশিক্ষার্থীসহ দুজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া ১২ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে ১০ শিক্ষার্থীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
বজ্রপাতে নিহতরা হলেন- উপজেলার বাচামারা ইউনিয়নের হাসাদিয়া গ্রামের কৃষক ইয়াকুব আলী শেখ (৪৮) এবং উপজেলার কলিয়া ইউনিয়নের তালুকনগর গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম ওরফে অন্তর (১২)। সে স্থানীয় তালুকনগর উচ্চবিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র ছিল।
আহত শিক্ষার্থীদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
এছাড়া  সকালে দৌলতপুরের বাচামারা ইউনিয়নের হাসাদিয়া গ্রামে বজ্রপাতে কৃষক ইয়াকুব আলী শেখ নিহত হয়েছেন।
বাচামারা ইউনিয়ন পরিষদের  চেয়ারম্যান আবদুল লতিফ জানান, সকালে হাসাদিয়া গ্রামে বাড়ির পাশে ধানখেতে আগাছা পরিষ্কার করছিলেন। সকাল ৯টার দিকে বজ্রপাতে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান।
কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি  জানায়, কিশোরগঞ্জের নিকলী ও পাকুন্দিয়া উপজেলায় বজ্রপাতে দুইজন নিহত হয়েছেন। তারা হলেন- নিকলী উপজেলার ছাতিরচর ইউনিয়নের পরিষদপাড়া গ্রামের শাহ জালাল (২৪) ও পাকুন্দিয়া উপজেলার সুখিয়া ইউনিয়ন পরিষদের আশুতিয়া গ্রামে দিপালী রানী বর্মণ (৩৫) ।
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, সিরাজগঞ্জের কাজিপুর বজ্রপাতে সমতুল্লাহ (৫০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছেন। এছাড়াও শাকিল মিয়া (১৫) নামে এক স্কুলছাত্র আহত হয়েছে। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার নাটুয়ারপাড়া ইউনিয়নের পানাগাড়ি চরে ও সকাল ১১টার দিকে খাস রাজবাড়ি চরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সমতুল্লাহ পানাগাড়ি গ্রামের বাসিন্দা ও আহত শাকিল খাস রাজবাড়ি গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে।
জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি জানান, জলঢাকায় বজ্রপাতে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। তারা হলেন- আসমা (৫০) ও নুর আমিন (৪৫)। বুধবার সকালে এ বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.