অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী

স্বাস্থ্য কর্মকর্তার ভাইয়ের অর্থপাচার ঠেকালো দুদক

Print

স্টাফ রিপোর্টার : স্বাস্থ্য খাতে দুর্নীতির ভয়াবহতা একে একে জনসম্মুখে প্রকাশ হচ্ছে। এবার ধরা পড়লেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মুন্সী সাজ্জাদ হোসেনের ভাই মুন্সী ফারুক হোসেন। ব্যাংকের মাধ্যমে ৯ কোটি টাকা পাচার করার সময় তাকে আটকে দেয় দুদক।

দুদকের পরিচালক(জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য আজ(৩০ জুলাই) এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এছাড়াও এক চিঠিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মুন্সী সাজ্জাদ হোসেন, তার ভাই মুন্সী ফারুক হোসেন, আবদুল্লাহ আল মামুনের নামে ও তাদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহের নামে থাকা এফডিআর, সঞ্চয়পত্র, এবং ব্যাংক হিসাবের লেনদেন অবরুদ্ধ করে দেয়ার অনুরোধ করা হয়।

দুদকের এক গোপন সূত্রে জানা যায় অভিযুক্ত ব্যক্তি বিভিন্ন ব্যাংকের এফডিআর, সঞ্চয়পত্র ভাঙ্গিয়ে এবং ব্যাংক হিসাব থেকে টাকা তুলে অন্যত্র পাচার করে দিচ্ছিলেন। এমন তথ্যের ভিত্তিতে দুদক একটি চিঠি ব্যাংক গুলোকে পাঠায়, যেখানে এই একাউন্ট গুলো থেকে সকল ধরণের লেনদেন অবরুদ্ধ করে দেয়ার অনুরোধ জানানো হয়।

এছাড়াও চিঠিতে সুনির্দিষ্টভাবে আরও বলা হয়, আহাদ এন্টারপ্রাইজের প্রোপ্রাইটর মুন্সী ফারুক হোসেনের নামে প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড, ইব্রাহীমপুর শাখায় ৭ কোটি টাকার এফডিআর যা সুদসহ ৯ কোটি টাকা রয়েছে। প্রাইম ব্যাংক লিমিটেডের ওই এফডিআর (৯ কোটি টাকা) ছাড়াও অভিযোগ সংশ্লিষ্ট মুন্সী সাজ্জাদ হোসেন, মুন্সী ফারুক হোসেন, আব্দুল্লাহ আল মামুনদের নিজ নামীয়, তাদের মালিকানাধীন ও স্বার্থ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের নামে অন্যান্য ব্যাংকে থাকা এফডিআর, সঞ্চয়পত্র ভাঙানো এবং ব্যাংক হিসাব থেকে টাকা উত্তোলনসহ সব লেনদেন অবরুদ্ধ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিএফআইউকে অনুরোধ জানানো হয়।

বিস্তারিত তদন্তের স্বার্থে দুর্নীতি দমন কমিশনের উপপরিচালক সামছুল আলমকে দলনেতা করে ছয় সদস্যবিশিষ্ট একটি টিম গঠন করা হয়েছে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.