অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী

‘অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের কারণেই’ সার্ক সম্মেলনে যাবে না বাংলাদেশ

Print

ঢাকা: বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার কারণেই পাকিস্তানে দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থার (সার্ক) শীর্ষ সম্মেলনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।সার্ক চেয়ারম্যান নেপালের প্রধানমন্ত্রী এবং সার্ক সচিবালয়কে মঙ্গলবার এ বিষয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বুধবার দুপুরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম এ কথা বলেন।

৯-১০ নভেম্বর ইসলামাবাদে সার্ক শীর্ষ সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বাংলাদেশ-ভারত, আফগানিস্তান ও ভুটান শীর্ষ সম্মেলনে যাবে না বলে মঙ্গলবার জানিয়ে দিয়েছে।

বাংলাদেশের সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে কোনো রাষ্ট্রের প্রভাব রয়েছে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, “অন্য কোনো রাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের সঙ্গে এর কোনো সম্পর্ক নেই। এটি বাংলাদেশে নিজস্ব সিদ্ধান্ত।”

শাহরিয়ার আলম বলেন, “সার্ক সচিবালয়কে লেখা চিঠিতে জানানো হয়েছে, সার্কের প্রতিষ্ঠাতা দেশ হিসেবে আঞ্চলিক সহযোগিতার প্রতি বাংলাদেশের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। কিন্তু একটি দেশ আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে অব্যাহতভাবে হস্তক্ষেপ করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। এর প্রতিবাদে সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে অংশগ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।”

এ ধরনের পরিবেশ সম্মেলনের উপযোগী নয় উল্লেখ করে নতুন পরিবেশে সার্ক শীর্ষ সম্মেলন হলে বাংলাদেশ এ বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করবে বলে চিঠিতে জানানো হয়।

শাহরিয়ার আলম বলেন, “আমরা যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের প্রশ্নে, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিচার প্রক্রিয়া ও পরবর্তীতে তাদের ফাঁসি কার্যকরের প্রশ্নে আপোশ করিনি, কখনও করবোও না।”

পাকিস্তানের কূটনৈতিক সম্পর্কের বিষয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, “সরকার বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ঘটনা পর্যালোচনা করে। আমরা এখনও দু’দেশের সম্পর্ক পর্যালোচনা করছি।”

উল্লেখ্য, একাত্তরের মানবতা বিরোধী অপরাধের বিচারের প্রশ্নে বারবার কূটনৈতিক সীমা লঙ্ঘন করে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে আসছে পাকিস্তান। তীব্র প্রতিবাদ সত্ত্বেও দেশটির পার্লামেন্টে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। সর্বশেষ মীর কাসেম আলীর ফাঁসির পরে পাকিস্তান সরকার বিষয়টি নিয়ে বিবৃতি দিলে প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ হয় বাংলাদেশ সরকার। এর পর দেশটির রাষ্ট্রদূতকে তলব করে এ বিষয়ে কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: