অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১০ই সফর, ১৪৪২ হিজরী

আফসোস তার মুখে চড় মারতে পারিনি

Print

স্পোর্টস ডেস্ক : প্রথম ম্যাচে ছিলেন না নেইমার-মারিয়া। সে ম্যাচ হেরে গিয়েছিল প্যারিস। কিন্তু লিগের দ্বিতীয় ম্যাচে মার্সেলির
বিপক্ষে নেইমার-ডি মারিয়াদের থাকা সত্ত্বেও দীর্ঘ ৯ বছর পর তাদের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ হারে পিএসজি। মার্সেলির হয়ে একমাত্র গোলটি করেন ফ্লোরিয়ান থাউভিন।

তবে এ ম্যাচটি সবার নজর কেড়েছে অন্য কারণে। মার্সেলির বিপক্ষে পিএসজির তিন খেলোয়াড় নেইমার দ্য সিলভা, লিয়ান্দ্রো পার্দেস ও লেইভিন কুরজাওয়া লাল কার্ড দেখেন। আর মার্সেলির জর্ডান আমাভি ও দারিও বেনেদেত্তোও লাল কার্ড পান।

ফ্রেঞ্চ লিগের এই ম্যাচটির পুরোটা জুড়েই দুদলের প্লেয়ারদের দ্বন্দ্ব ছিল চরমে। কিন্তু খেলার একদম শেষ সময়ে এসে দু দলের মাঝে তুমুল ঝামেলা বেঁধে যায়। একটি ফাউলকে কেন্দ্র করে প্রথমে ধাক্কাধাক্কি, পরে একজন আরেকজনকে লাথিও মারতে দেখা যায়।

এ ম্যাচে লাল কার্ডের দেখা পান নেইমার। তিনি প্রতিপক্ষ খেলোয়াড় আলভারো গনসালেসের মাথার পেছনে আঘাত করেন, ভিএআর দেখে রেফারি তা নিশ্চিত করে নেইমারকে লাল কার্ড দেখান।

কিন্তু এরপরই টুইটারে বিস্ফোরণ নেইমার। বলেন, গনসালেস বর্ণবাদী। তাই আমি তাকে আঘাত করেছি। কিন্তু আফসোস, আমি তার মুখে আঘাত করতে পারিনি। রেফারি ভিএআর করে আমার আক্রমণ সহজেই শনাক্ত করলো। কিন্তু যে আমাকে বাঁদর বলে গালি দিলো তার কি হবে? আমি রেইনবো ফ্লিক করলে আমাকে শাস্তি দেয়া হয়, আঘাত করার জন্য আমাকে লাল কার্ড দেয়া হয়। কিন্তু যারা বর্ণবাদী তাদের কি হবে?

প্রসঙ্গত, উক্ত ম্যাচ চলাকালীন সময়ে আলভারো গনসালেসের সাথে বাগবিতণ্ডা হয়েছিল নেইমারের। সেসময়ই হয়তো নেইমারের সাথে বর্ণবাদী আচরণ করেছেন গনসালেস।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: