অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ১লা অগ্রাহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

আলোচনায় ট্রাম্প-নিকির পরকীয়া

Print

অনলাইন ডেস্ক : ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি বইটি প্রকাশের পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও জাতিসংঘে নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালির মধ্যে পরকীয়ার সম্পর্ক থাকার গুজব ছড়িয়ে পড়ে। গত সপ্তাহে লেখক ওলফের এক টিভি সাক্ষাৎকারে গুজব আরও জোড়ালো হয়। সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, তিনি ‘শতভাগ নিশ্চিত’ যে ট্রাম্প বর্তমানে কারও একজনের সঙ্গে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে আছেন। ওলফের এই মন্তব্যের পর অনেকেই অনুমান করেন, ট্রাম্পের কথিত এই প্রেমিকা হ্যালি। তবে ট্রাম্পের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক থাকার গুঞ্জন অস্বীকার করেছেন নিকি হ্যালি। ট্রাম্প প্রশাসনে গুটিকয়েক উচ্চপদস্থ নারী কর্মকর্তার মধ্যে তিনি একজন।
মার্কিন রাজনীতি বিষয়ক সংবাদমাধ্যম পলিটিকোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে হ্যালি এই গুঞ্জন শুধু উড়িয়েই দেননি, একে ‘খুবই আপত্তিকর ও বিরক্তিকর’ বলেও আখ্যা দেন। যুক্তি দেওয়ার সুরে হ্যালি বলেন, তিনি কখনই প্রেসিডেন্টের সঙ্গে একাকী থাকেন না। নিকি হ্যালিকে প্রেসিডেন্টের গোপন প্রেমিকা ভাবার কারণ হলো, ওলফ তার বইয়ে লিখেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার সরকারী বিমান এয়ার ফোর্স ওয়ানে তার সঙ্গে প্রচুর ব্যক্তিগত সময় অতিবাহিত করেছেন। কিন্তু হ্যালি বলেন, এমন অনুমান একেবারেই সত্য নয়। আক্ষরিক অর্থেই আমি এয়ার ফোর্স ওয়ানে চড়েছি মাত্র একবার। আর আমি যখন সেখানে ছিলাম- আমার সঙ্গে একই কক্ষে অনেকেই ছিলেন।’
৪৬ বছর বয়সী হ্যালি ২০ বছর ধরে বিবাহিত জীবন যাপন করছেন। তার দুই সন্তানও আছে। তিনি দক্ষিণ ক্যারোলাইনার প্রথম নারী গভর্নর। মার্কিন ইতিহাসে তিনি ভারতীয় বংশোদ্ভূত দ্বিতীয় আমেরিকান গভর্নর। পলিটিকোর সঙ্গে সাক্ষাৎকারে, ট্রাম্পের সঙ্গে সম্পর্ক থাকার গুঞ্জব সম্পর্কে হ্যালি বলেন, সফল নারীদের আক্রমণ করাটা নতুন কিছু নয়।
ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনে মন্ত্রী পদমর্যাদার নারী আছেন হ্যালিসহ চারজন। গুঞ্জন রয়েছে ভবিষ্যতে রিপাবলিকান দল থেকে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হতে পারেন হ্যালি। ২০১৬ সালের নির্বাচন শেষ হলে তিনি বলেন, তিনি ট্রাম্পের ভক্ত নন, তবে তাকেই নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন।
তিনি পলিটিকোকে আরও বলেন, ‘ওলফ বলেছেন, আমি নাকি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আমার রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে অনেক আলাপ করে বেড়াই। কিন্তু কখনোই ভবিষ্যত নিয়ে প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আলাপ করিনি আমি।’ যুক্তি হিসেবে তিনি আরও বলেন, ‘আমি কখনই প্রেসিডেন্টের সঙ্গে একান্তে যাই না।’
গত বছরের ডিসেম্বরে হ্যালি বলেছিলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যেসব নারী যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তুলেছেন, তাদের কথা শোনা দরকার। এই সাক্ষাৎকারে তাকে প্রশ্ন করা হয়, ওই মন্তব্যের কারণে ট্রাম্প তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়েছিলেন কিনা। জবাবে হ্যালি বলেন, ট্রাম্পের সঙ্গে তার সম্পর্ক আগের মতোই আছে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.