অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৬ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী

উচ্চস্বরে গান-বাজনা, প্রতিবাদ করায় পিটিয়ে হত্যা

Print

নিজস্ব প্রতিবেদক : গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে উচ্চ স্বরে গান-বাজনা বন্ধ করতে বলায় ভ‚মি মন্ত্রণালয় থেকে অবসর নেয়া নাজিমুল ইসলাম (৬৫) নামের এক সরকারি কর্মকর্তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে রাজধানীর গোপীবাগে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।
গত বৃহস্পতিবার রাতে গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে উচ্চ স্বরে গান বাজালে নাজিমুলের ছেলে নাসিমুল গিয়ে গান বন্ধ রাখতে অনুরোধ করলে বর ও স্বজনদের সঙ্গে বাক-বিতণ্ডা হয়। ওই সূত্র ধরে শুক্রবার সকালে বাবা ও ছেলেকে ডেকে নিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে নাজিমুলকে হত্যা করে বরপক্ষের লোকজন।
জানা যায়, গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে উচ্চস্বরে গান-বাজনা হচ্ছিল। যে ভবনে গান-বাজনা হচ্ছিল সেই ভবনের অষ্টম তলার বাসিন্দা নাজিমুল হকের (৬৫) সমস্যা হচ্ছিল। তিনি অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা এবং সম্প্রতি ‘বাইপাস সার্জারি’ করিয়েছেন।
তাই তার ছেলে নাসিমুল ছাদে গিয়ে বিষয়টি জানালে বর ও স্বজনদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার সকালে তাদের বাসা থেকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে নাজিমুলকে হত্যা করা হয়। নাজিমুল হক সর্বশেষ ভূমি মন্ত্রণালয় থেকে অবসর নেন।
নাসিমুলের স্ত্রী সাদিয়া আফরিন জানান, চার বছর আগে তার শ্বশুরের ‘বাইপাস সার্জারি’ হয়। এরপর থেকেই অসুস্থ তিনি। ওই ভবনের ৮ তলায় থাকেন তারা। ছাদে বিয়ের গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান হচ্ছিল হৃদয় নামে এক যুবকের, যার চাচা আলতাফ হোসেন নামে এক ব্যক্তি। ওই অনুষ্ঠানে গান-বাজনা হচ্ছিল। তিনি আরো জানান, ছাদের গান-বাজনার কারণে অসুস্থ হয়ে পড়েন নাজিমুল।
নাজিমুলের মেয়ে নাফিসা জানান, গুরুতর আহত অবস্থায় তার বাবাকে আজগর আলী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে পথেই মারা যান তিনি। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, হাসপাতালে পৌঁছার প্রায় ১০ মিনিট আগেই তিনি মারা গেছেন।
নাফিসা জানান, আজ সকালে ভবনের তত্ত্বাবধায়কের (কেয়ারটেকার) মাধ্যমে তার বাবা ও ভাইকে নিচে ডেকে নিয়ে যান বর ও বরের স্বজনরা। নিচে নামেন নাজিমুল হক, নাসিমুল হক ও নাজিমুলের স্ত্রী সাদিয়া। নাসিমুল হকের ওপর হামলা করে বর ও বরের স্বজনরা। ছেলেকে বাঁচাতে গেলে ১০-১২ জন পুরুষ ও নারী একযোগে হামলা চালায় নাজিমুলের ওপর।
ওয়ারী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সেলিম মিয়া জানান, উচ্চশব্দে গান বাজানোকে কেন্দ্র করে বিয়ে বাড়ির লোকজনের অতর্কিত হামলায় মৃত্যু হয় নাজিমুল হকের। এ বিষয়ে থানায় মামলা করবেন নিহতের ছেলে নাসিমুল হক। সেলিম মিয়া আরো জানান, ঘটনার সময় ভবনের ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। সেখানে মারধরের ঘটনা দেখা গেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.