অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৫ই রমযান, ১৪৪২ হিজরী

উৎস ঠেকাতে না পারলে করোনা দ্রুত নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Print

স্টাফ রিপোর্টার : প্রতিদিন যদি ৫০০ থেকে ১০০০ রোগী হাসপাতালে ভর্তি হতে থাকে তাহলে পুরো শহরকে হাসপাতাল দিয়ে ভরে ফেললেও রোগীর চাপ কমানো যাবে না। এই জন্য যা করার এখনই করতে হবে। অর্থাৎ, যে স্থান থেকে করোনার সৃষ্টি হচ্ছে, সে স্থানগুলোতে জরুরি ভিত্তিতে পদক্ষেপ নিতে হবে। সবাইকে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা করা ১৮ দফা নির্দেশনা কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে।

 

আজ বুধবার সন্ধ্যায় অনলাইন জুম মিটিং এর মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ এসোসিয়েশন কর্তৃক আয়োজিত এক সভায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক একথা বলেছেন। কোভিড-১৯ দ্বিতীয় ঢেউ এ ক্রমাগত অবনতি, সার্বিক পরিস্থিতি, হাসপাতালের সুযোগ সুবিধা ও শয্যা বৃদ্ধি বিষয়ে বিপিএমসিএ’র সদস্যভুক্ত প্রতিষ্ঠান ও হাসপাতালের সঙ্গে এই মত বিনিময় সভায় অনুষ্ঠিত হয়।

 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গত এক মাস আগেও আক্রান্তের হার ছিল মাত্র ২ শতাংশ। আর এখন এটি প্রায় ২০ শতাংশে চলে গেছে। দিনে ৫ হাজারেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন, মৃত্যুর সংখ্যাও দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। স্বাস্থ্যখাতের উদ্যোগে সরকারিভাবে দ্রুত আড়াই হাজার বেড বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ৪০টি নতুন আইসিইউ স্থাপন করা হয়েছে, ঢাকার নর্থ সিটি কর্পোরেশনের হাসপাতালটি কোভিড ডেডিকেটেড ঘোষণা করা হয়েছে।

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল, শেখ হাসিনা বার্ণ ইনস্টিটিউট, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালসহ দেশের বেশিরভাগ হাসপাতালে শত শত শয্যা কভিড ডেডিকেটেড করা হচ্ছে। কিন্তু প্রতিদিন যদি ৫০০-১০০০ রোগী হাসপাতালে ভর্তি হতে থাকে তাহলে গোটা ঢাকা শহরকে হাসপাতাল করে ফেললেও রোগী রাখার জায়গা দেয়া যাবেনা। এর জন্য যা করার এখনই করতে হবে। অর্থাৎ এই মুহূর্তে যা করতে হবে তা হচ্ছে, যে যে স্থান থেকে করোনা সৃষ্টি হচ্ছে সেই সকল স্থানে এখনই জরুরি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। সবাইকে প্রধানমন্ত্রীর ১৮টি নির্দেশনা কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে। সকল পর্যটন কেন্দ্র, হোটেল,যানবাহনসহ অন্যান্য সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্র সমূহে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। বিয়ে-সাদি,ধর্মীয় অনুষ্ঠান,পিকনিক আয়োজন বন্ধ রাখতে হবে। সকল মানুষকে মুখে মাস্ক পড়তে হবে। কারণ এখনই করোনাকে নিয়ন্ত্রণে নিতে না পারলে নিকট ভবিষ্যতে করোনাকে আর খুব সহজে নিয়ন্ত্রণ করা ভীষণ কঠিন হয়ে পড়বে।

 

এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বেসরকারি মেডিকেল কলেজ এসোসিয়েশনের মালিক, পরিচালক এবং চেয়ারম্যানদের কোভিড বেড অন্তত দেড় থেকে দুই হাজার বৃদ্ধির অনুরোধ জানান। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, এই মুহূর্তে কোভিডকে মোকাবিলা করাই আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। সাধারণ মানুষ এখন বেপরোয়া চলাফেরা করছে। এটিকে থামাতেই হবে।

 

 




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: