অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৭ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২২শে মহররম, ১৪৪১ হিজরী

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু আজ

Print

নিজস্ব প্রতিবেদক : আজ বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা চলাকালে সীমিত সময়ের জন্য ফেসবুক বন্ধে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানোর বিষয়ে আমরা তাদের সঙ্গে আলোচনা করেছি। বিটিআরসি বলেছে এটি প্রতিহত করার ক্ষেত্রে আরো ইফেক্টিভ কতগুলো ব্যবস্থা তারা নেবে। বুধবার সচিবালয়ে শিক্ষামন্ত্রীর কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমরা এখনই ফেসবুক বন্ধ করতে বলিনি। বন্ধ করার ক্ষমতাও আমাদের নেই। ফেসবুকের ব্যাপারে বিটিআরসি চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলাপ করেছি। তাদের আমরা সমস্যার কথা বলেছি। আমরা বলেছি, এ প্রযুক্তি ব্যবহার করে নানাভাবে ছড়িয়ে (প্রশ্নপ্রত্র) ফেলার চেষ্টা করা হয়। এ ব্যাপারে আপনারা সাহায্য করতে পারেন। তারা খুব পজিটিভলি সাহায্য করার কথা জানিয়েছেন।
এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এর আগেও রাজনৈতিক সহিংস কর্মসূচির কারণে পাবলিক পরীক্ষা ধারাবাহিকভাবে আয়োজনে ব্যাঘাত হয়। পরবর্তীতে সরকারি ছুটির দিনগুলোতে পরীক্ষার আয়োজন করা হয়। বিএনপির উদ্দেশে তিনি বলেন, আশা করি এবার ২০ লাখের বেশি শিক্ষার্থীর ভবিষ্যৎ জীবনের কথা বিবেচনায় নিয়ে এমন কোনো কর্মসূচি আপনারা দেবেন না, যাতে পরীক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। যারা রাজনীতি করেন তারা তো জনগণের কল্যাণে কাজ করেন। এ কারণে শিক্ষার্থীদের বিষয়টি মাথায় রাখার জন্য আপনাদের প্রতি অনুরোধ রইলো।
শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, এবার ১০টি বোর্ডের তিন হাজার ৪১২টি কেন্দ্রে এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। মোট ২৮ হাজার ৫৫১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা এ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে। সাধারণ আট বোর্ডে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৬ লাখ ২৭ হাজার ৩৭৮ জন। এখানে ছাত্রের তুলনায় ছাত্রীর সংখ্যা বেশি। এছাড়া দাখিলে পরীক্ষার্থী রয়েছে দুই লাখ ৮৯ হাজার ৭৫২ জন। এসএসসি ভোকেশনালে এক লাখ ১৪ হাজার ৭৬৯ জন। নাহিদ বলেন, গত বছরের তুলনায় এবার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে দুই লাখ ৪৫ হাজার ২৮৬ জন। ১০ বোর্ডে এবার নিয়মিত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৭ লাখ ৩৯ হাজার ৫৭৩ জন এবং অনিয়মিত শিক্ষার্থী দুই লাখ ৮৯ হাজার ৭৪৬ জন। পরীক্ষার্থীদের ৩০ মিনিট আগে সিটে বসতে হবে। এরপর আর কোনো পরীক্ষার্থীকে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না।
আইন হলে স্থায়ীভাবে বন্ধ হবে কোচিং : প্রশ্ন ফাঁস রোধে সামাজিক মাধ্যম বন্ধের অনুরোধ করা ছাড়াও গত শুক্রবার থেকে কোচিং সেন্টার বন্ধের নির্দেশ দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী। তবে এরপরও কোথাও কোথাও কোচিং চালু থাকার খবর এসেছে গণমাধ্যমে। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আপনারা বলেছেন বাইরে তালা দিয়ে ভেতরে কোচিং কার্যক্রম চলছেÑ এটা আমাদের জানা নাই। পুলিশকে এ বিষয়ে আমরা বলব যাতে তারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেন। কোচিংয়ের বিষয়ে আইন আসছে জানিয়ে নাহিদ বলেন, আইনটি চূড়ান্ত হলে কোচিং বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া যাবে। তখন স্থায়ীভাবে বন্ধ হবে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.