অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ই রমযান, ১৪৪০ হিজরী

কিডনিতে পাথর জমার লক্ষণ

Print

অনলাইন ডেস্ক : কিডনিতে পাথর অনেকেরই হয়। এটি অতিপরিচিত একটি সমস্যা। পাথরগুলো সাধারণত আকারে ছোট হয়। কিডনির ভেতরে দীর্ঘদিন ধরে কঠিন পদার্থ জমে জমে এ পাথর হয়। সাধারণত খনিজ এবং অ¤ø লবণ দিয়ে কিডনির পাথর হয়। বিভিন্ন কারণে পাথর হতে পারে। তবে প্রস্রাব গাঢ় হলে তা খনিজগুলোকে দানা বাঁধতে সহায়তা করে এবং তা পাথরে রূপ নেয়। কিডনিতে পাথর হলে তা ক্ষতিকারক হতে পারে। এ কারণে এর উপসর্গগুলো সবারই জানা উচিত। কিডনিতে পাথর হলে পিঠে কিংবা পাজরের দুইপাশে, তলপেটে ব্যথা হয়, প্রসাবের পরিমাণ বেশি থাকে, প্রসাবের সময় ব্যথা হয়, ইউরিনের রঙ গোলাপি, লাল, বাদামি কিংবা গাঢ় রঙের হয়। জ্বর এবং বমি বমি ভাবও হয়।
এর সবই যে একজনের মধ্যে দেখা দেবে তা নয়। একেকজনের উপসর্গ একেক রকম হতে পারে। পাথরের আকৃতি এবং কিডনির কোন স্থানে জমেছে তার উপর নির্ভর করে উপসর্গ। কিডনিতে পাথর জমলে কেউ কেউ ঠিকমতো দাঁড়াতে, বসতে কিংবা শুয়ে থাকতে পারেন না। সবসময়ই অস্বস্তি বোধ করেন। পেটে অসহ্য যন্ত্রণা হয়। কারও কারও আবার প্রসাবের সঙ্গে রক্ত আসে। কিডনিতে পাথর হলে রক্ত, ইউরিন টেস্ট, এক্স-রে, আলট্রাসনোগ্রামের মাধ্যমে রোগ নির্ণয় করা যায়। শরীরে এ উপসর্গগুলো দেখা দিলে এবং নিজের কাছে সন্দেহ লাগলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.