অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২রা জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী

গুলশানে ঘুরছে ‘ঢাকা চাকা’, হলুদ রিকশা

Print

দৈনিক চিত্র রিপোর্ট: গুলশান, বনানী, নিকেতন ও বারিধারা এলাকার বাসিন্দাদের জন্য বিশেষ বাস ও রিকশা সার্ভিসের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। গতকাল আনুষ্ঠানিকভাবে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। গুলশানে হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলার পর নিরাপত্তাজনিত কারণে গুলশান এলাকায় এক মাসেরও বেশি সময় যাত্রীবাহী বাস চলাচল বন্ধ ছিল। ওই এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঢেলে সাজানোর অংশ হিসেবে নতুন বাস এবং বিশেষ রিকশা সার্ভিস চালু করা হয়েছে। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ও ওই চার আবাসিক এলাকার সোসাইটির উদ্যোগে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ঢাকা ওয়াসা, দুই সিটি করপোরেশনসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিয়ে আমরা সমন্বিত ড্রেনেজ ব্যবস্থার প্ল্যান করার চেষ্টা করছি। তা বাস্তবায়নে একটি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন প্রকৌশল সংস্থাকে নিয়োগ দেয়া হবে। জনবহুল ও বর্ধিত ঢাকা সিটিকে মাথায় রেখেই এই ডিটেইল ড্রেনেজ প্রকল্প। ঢাকার চারদিকে চারটা নদী খনন ও গভীরতা বাড়িয়ে পানি নিষ্কাশনের সক্ষমতা বাড়ানো হবে। আশা করছি, আগামী বছরের মধ্যে অর্থদাতা সংগ্রহ করে কাজ শুরু করতে পারবো।
মন্ত্রী আরো বলেন, ক‚টনৈতিক জোনে চালু করা নতুন বিশেষ রিকশা সার্ভিস সড়কে যানজট সৃষ্টি করে কিনা তা নজরদারিতে রাখা হবে। ডিএনসিসি মেয়র আনিসুল হকের উদ্যোগকে উদ্ভাবনী উল্লেখ করে তার প্রশংসাও করেন মন্ত্রী।
সভাপতির বক্তব্যে মেয়র আনিসুল হক বলেন, গত ১লা জুলাই হলি আটির্জান বেকারিতে জঙ্গি হামলার পর ক‚টনৈতিক জোনের নিরাপত্তায় পরিবর্তন এসেছে। গুলশান, বারিধারা, বনানী ও নিকেতন সোসাইটি সম্মিলিতভাবে কাজ করছে। গুলশানের দুটি রুটে উঠা-নামা ও গন্তব্যে পৌঁছা পর্যন্ত ১৫ টাকা ভাড়ায় এই এসি বাসগুলোতে যাত্রীরা যাতায়াতের সুযোগ পাবেন। এখন ২০টা বাস নামছে। আরো ২০টা বাস নামানো হবে। একই সঙ্গে নামছে ৫০০ বিশেষ রিকশা। এছাড়া ৬৪৬টি সিসি ক্যামেরা এরই মধ্যে লাগানো হয়েছে। আরো ৫০০টি লাগানো হবে। সম্প্রতি চালু করা অ্যাপস ‘নগর’ও রাজধানীবাসীর নিরাপত্তা বিধানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা-১১ আসনের এমপি একেএম রহমত উল্লাহ বলেন, যেকোনো কিছুর বিনিময়ে আরো সংগঠিত হয়ে জঙ্গিবাদ দমন করা হবে।
‘ঢাকা চাকা’ নামের বাসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন পুলিশের মহাপরিদর্শক একেএম শহীদুল হক। তিনি বলেন, হলি আর্টিজানের মতো ঘটনা বাংলাদেশে আর ঘটেনি। এতে আমাদের ভাবমূর্তি ক্ষুণœ হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে অর্থনৈতিকভাবে আরো ক্ষতি হতে পারতো। তবে তা কেটে উঠছে। জঙ্গিরা নাশকতার মধ্য দিয়ে দেশি ও বিদেশিদের মধ্যে ভীতি তৈরি করেছে। এখন বিদেশিদের নিরাপত্তা-ভীতি দূর করতে হবে। ফিরিয়ে আনতে হবে আস্থা। যাতে তারা আমাদের উন্নয়ন সহযোগী হিসেবে কাজ করেন।
ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, আর্টিজান ও শোলাকিয়ায় আমরা জীবন দিয়েছি। জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আমরা যুদ্ধ ঘোষণা করেছি। হলি আর্টিজান হামলার পর ঢাকার নিরাপত্তা ঢেলে সাজানো হয়েছে। নিয়মিত চলছে পুলিশের গোয়েন্দা নির্ভর অভিযান, বøক রেইড, তল্লাশি।
এফবিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট আবদুল মাতলুব আহ্মাদ তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নিটল-নিলয় গ্রæপের নামানো বাসগুলোর বিষয়ে বলেন, দিল্লি থেকে আনা বাসগুলোর ইঞ্জিন বন্ধ থাকলেও চলবে এসি। শব্দ দূষণমুক্ত বাসগুলোতে যাত্রীর সঙ্গে চালকের কোনো সম্পর্ক থাকবে না। তাছাড়া যাত্রীরা ফ্রি ওয়াই ফাই ব্যবহারের সুযোগ পাবেন। কর্তৃপক্ষের অনুমোদন পেলে ক‚টনৈতিক জোনের ভেতরের অলিগলিতে উঠা-নামায় ৫ টাকা ভাড়ায় চলাচলের জন্য ‘সূর্যের গাড়ি’ নামে নতুন ধরনের ছোট গাড়ি নামানোর ইচ্ছাও প্রকাশ করেন তিনি।
অনুষ্ঠানে গুলশান সোসাইটির সভাপতি ও সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার ড. এটিএম শামসুল হুদা বলেন, যেকোনো জনবহুল শহরে নাগরিকদের চাহিদা পরস্পরবিরোধী হয়। রিকশা বন্ধ করে দিলে একই সঙ্গে একটি মহলের সুবিধা ও অন্য মহলের অসুবিধা হবে। তাই কোনো নাগরিক সুবিধা বাস্তবায়নে তিনি সবার জন্য মোটামোটি গ্রহণযোগ্য উপায় খুঁজে বের করার পরামর্শ দেন। এছাড়া ক‚টনৈতিক জোনের প্রতিটি বাস স্টপেজে বিশুদ্ধ খাবার পানি সরবরাহ এবং ৫০০ রিকশা চালক ও তাদের পরিবারের চিকিৎসার জন্য একটি ক্লিনিক স্থাপনের ঘোষণা দেন তিনি।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: