অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৭ই রমযান, ১৪৪০ হিজরী

জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের বিপক্ষে কিছু দেখি না: সিইসি

Print

অনলাইন ডেস্ক : বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েন একটি বাস্তবতা- এমন মন্তব্য করে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদা বলেছেন, আগের নির্বাচনগুলোতে সেনা মোতায়েন হয়েছে। সুতরাং এবারের নির্বাচনগুলোতে যে সেনা মোতায়েন হবে না সেটি বলা যাবে না। আমরা তো সেনা মোতায়েনের বিপক্ষে কিছু দেখি না।
বিবিসির বাংলা বিভাগকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন সিইসি। সাক্ষাৎকারটি বিবিসির প্রবাহ টিভি অনুষ্ঠানে প্রচার করা হয়।
সিইসি মনে করেন, কোনো রাজনৈতিক দল নির্বাচন বয়কট করার আশঙ্কা নেই। আর যদি করে, সেক্ষেত্রে সাংবিধানিক যে প্রক্রিয়া আছে, সে অনুযায়ী নির্বাচন কমিশনের কাজ করতে হবে। নুরুল হুদা বলেন, সংবিধানের বাইরে তো কিছু করা যাবে না। তবে আমি শতভাগ আশাবাদী সব রাজনৈতিক দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে।
বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি মনে করে, একটি নিরপেক্ষ সরকার না থাকলে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়- সেক্ষেত্রে বিএনপিকে আশ্বস্ত করার জন্য নির্বাচন কমিশন কী করতে পারে? এমন প্রশ্নে সিইসি বলেন, আমি বলতে পারি- নির্বাচন কমিশনে যে পরিবেশ-পরিস্থিতি হোক না কেন, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করবে। গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নির্বাচন কমিশন বদ্ধপরিকর। কোন ধরনের সরকার হবে এটি নির্বাচন কমিশন নির্ধারণ করতে পারে না।
নুরুল হুদা বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংলাপের উদ্দেশ্য ছিল- সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে একটি নির্বাচন অনুষ্ঠান করা এবং সংলাপের মাধ্যমে সব রাজনৈতিক দল আশ্বস্ত হয়েছে। তারা সবাই বিশ্বাস করেছেন নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় সুষ্ঠু নির্বাচন করা সম্ভব। বর্তমান কমিশনের অধীনে ছয় শতাধিক স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং সেগুলো নিয়ে কোনো বিতর্ক সৃষ্টি হয়নি বলে দাবি করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.