অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১২ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরী

নতুন চমক নিয়ে আসছে ‘যাত্রী’ ব্যান্ড

Print

একবিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকের ঘটনা। গান পিয়াসী কয়েকজন তরুণ মিলে সঙ্গীত নিয়ে চর্চা করতে করতে জন্ম দিল একটি ব্যান্ডের। তার নাম- যাত্রী। ইংরেজিতে এর উচ্চারণ ‘ইয়াত্রী’। ২০০৩ এ ব্যান্ড মিক্সড অ্যালবাম ‘স্বপ্নচূড়া’ তে এই ব্যান্ডের প্রথম গান প্রকাশিত হয়। ব্ল্যাক ব্যান্ডের ড্রামার টনির তত্বাবধানে প্রকাশিত এই অ্যালবামে যাত্রীর গানের নাম ছিল ‘নূপুর’। প্রথম গানেই বাজিমাত।

রাতারাতি তারকা খ্যাতি পেয়ে যায় যাত্রী ব্যান্ডের গায়ক তপু। সে থেকে এখন-অবধি তাদের ‘এক পায়ে নূপুর’ গানটি বাংলা গানের শ্রোতাদের মুখে মুখে। বাংলাদেশের মানচিত্র পেরিয়ে এই গান ওপার বাংলায়ও বেশ জনপ্রিয়।

বাংলাদেশের যমুনা ফিউচার পার্কে বলিউডের জনপ্রিয় গায়ক অরজিত সিং গান করতে এসে বলেছিলেন, তিনি তপু’র ‘এক পায়ে নূপুর’ গান শুনে সঙ্গীতের প্রতি বিশেষ টান অনুভব করেন। লাখো দর্শকের সামনে এই কথা বলে তিনি তপু ও যাত্রী ব্যান্ডের এই গানটি পরিবেশন করেন, এরপরে অরিজিত এদেশে শো করতে এলেই ‘এক পায়ে নূপুর’ গানটি পরিবেশন করে থাকেন।

যাই হোক, ফিরে আসি আগের কথায়। ২০০৪ সালে আবারো টনির তত্বাবধানে প্রকাশিত হয় ব্য্যান্ড মিক্সড অ্যালবাম ‘স্বপ্নচূড়া-২’  এই অ্যালবামে প্রকাশিত যাত্রী ব্যান্ডের ‘একটা গোপন কথা’ ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। এবার দেশের তারকা ব্যান্ডের কাতারে ঠাঁই করে নেয় যাত্রী। যাত্রী ব্যান্ডের গায়ক তপু হয়ে ওঠেন প্রজন্মের আকর্ষণীয় তারকা। এসবের নেপথ্যে ছিলেন জি সিরিজের কর্ণধার নাজমুল হক ভুঁইয়া খালেদ। গানগুলো প্রকাশিতও হয়েছিল জি সিরিজ থেকে।

২০০৬ সালে এসে যাত্রী ব্যান্ডের একক অ্যালবাম প্রকাশিত হয়। শিরোনাম ছিল- ডাক। এই অ্যালবামের প্রায় প্রতিটি গান শ্রোতাদের পছন্দের তালিকায় ঠাঁই পায়। তবে বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছিল ‘কে ডাকে’, ‘মিথ্যে প্রেম’ ও ‘অজানা মনে’। এর মাঝেই দেশ বিদেশের স্টেজ শো এবং টেলিভিশন শোগুলোতে বাঞ্ছনীয় হয়ে ওঠেন গায়ক তপু ও যাত্রী ব্যান্ড।।

ব্যান্ডের পাশাপাশি তপু একক গান নিয়েও ব্যস্ত হয়ে যান। জি সিরিজ থেকে তার ৪ টি একক অ্যালবাম প্রকাশিত হয়। তা হলো, ‘বন্ধু ভাবো কি?’ (২০০৮) , ‘সে কে ?’ (২০১০), ‘আর তোমাকে’ (২০১৩) ও ‘দেখা হবে বলে’ (২০১৫)। এই অ্যালবামগুলো শ্রোতাদের মাঝে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। পাশাপাশি তপু ও তার ব্যান্ড যাত্রীর আরো অনেক গান প্রকাশিত হয় বিভিন্ন মিশ্র অ্যালবামে। ২০০৯ সালে জনপ্রিয় চলচ্চিত্রকার মোস্তফা সরওয়ার ফারুকী’র সিনেমা ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’ এ তপু অভিনয় করেও জনপ্রিয়তা পান।

দীর্ঘ ১০ বছর পরে যাত্রী ব্যান্ড ও তপুর ভক্তদের জন্যে রয়েছে সু-খবর। জি সিরিজ থেকে প্রকাশিত হতে যাচ্ছে যাত্রী’র নতুন অ্যালবাম। ‘যাত্রী’ সেলফ টাইটেল অ্যালবাম হবে এটি। এই প্রসঙ্গে তপু বলেন, যাত্রী’র এই অ্যালবামেও রয়েছে চমক। ‘এক পায়ে নূপুর’ খ্যাত গায়িকা আনিলার সাথে নতুন গান আবার পাওয়া যাবে। সাগর বাউলের সাথে নিয়ে যাত্রী’র ‘কে ডাকে ২০১৬’ গানের নতুন উপস্থাপনায় মিউজিক ভিডিওটি ইতোমধ্যে ভালো সাড়া ফেলেছে দর্শকের মাঝে।

প্রসঙ্গক্রমে তপু বলেন, দীর্ঘদিন পরে আমার ব্যান্ডের অ্যালবাম প্রকাশিত হচ্ছে, এতে শ্রোতার আমার একক গানের সঙ্গে বিশাল ফারাক খুঁজে পাবেন আশা করি। গানগুলোতে আধুনিকতার ব্যতিক্রম ছোঁয়া পাবেন সবাই। ব্যান্ড মেম্বারদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। প্রত্যেকে বেশ যত্ন নিয়ে গানগুলো নির্মাণ করেছেন। প্রত্যেকের বাজনায়ও রয়েছে নতুনত্ব। মোট কথা, একজন গায়কের একক গান ও ব্যান্ডের গানের যে একটা পার্থক্য রয়েছে, তা স্পস্ট বোঝা যাবে এই গানগুলো শুনলে। যাত্রী ব্যান্ডের বেস গিটারিস্ট সামস বলেন, তপু ভাই আমাদের ব্যান্ডের নেতা হলেও তিনি আমাদের সবার পছন্দকেই গুরুত্ব দেন ব্যান্ডের গান করার ক্ষেত্রে। একজন মিউজিশিয়ান হিসেবে স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারাটাই বিশাল আনন্দের। তিনি আমাদের ওপর কিছু চাপিয়ে দেন না। তাই তো যাত্রীর প্রথম অ্যালবাম এখন অব্দি তপু ভাইয়ের সাথেই আছি। উল্লেখ্য- যাত্রী ব্যান্ডের ভোকাল তপু, লীড গিটারে সেতু, কীবোর্ডে রোমল ড্রামার খালেদ এবং বেস গিটারে রয়েছেন সামস।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: