অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৮ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরী

‘নির্বাচনে সহিংসতা চেয়েছিলেন খালেদা জিয়া’

Print

চট্টগ্রাম সংবাদদাতা : পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ব্যাপক সহিংসতা চেয়েছিলেন বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক, সাবেক মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি। এই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে দেশের জনগণ বিএনপিকে প্রত্যাখান করেছে বলেও দাবি করেন তিনি।

তিনি বলেছেন, ‘এই পৌর নির্বাচনে সারাদেশে ব্যাপক সহিংসতা হোক, অনেক মানুষ হতাহত হোক। এই সহিংসতাকে পূঁজি করে খালেদা জিয়া আবারও সারাদেশে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চেয়েছিলেন। বিএনপি’র প্রথম থেকেই প্রচেষ্টা ছিলো এই নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করা। নির্বাচন নিয়ে, নির্বাচন কমিশন নিয়ে, আইন-শৃংখলাবাহিনীর ভূমিকা প্রশ্ন উত্থাপন করে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করা। সারাদেশে শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণ খালেদা জিয়ার সব ষড়যন্ত্র নস্যাত করে দিয়েছে।’

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম নগরীর নিজ বাসভবনে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ড. হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘সারাদেশে শান্তিপূর্ণ পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি’র ভরাডুবি’র মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে বিএনপি একটি জনবিচ্ছিন্ন দল। জনগণ বিপুল ভোটে আওয়ামীলীগ এবং নৌকা মার্কার প্রার্থীদের বিজয়ী করার মাধ্যমে প্রমাণ করে জনগণ বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করেছে। বিএনপি যে এতোদিন পেট্রোল বোমার রাজনীতি করেছে, জঙ্গী আশ্রয়ী সন্ত্রাস নির্ভর রাজনীতি করেছে, পৌরনির্বাচনে এর সমুচিত জবাব পেয়েছে বিএনপি।’

হাছান মাহমুদ আরো বলেন, ‘পৌর নির্বাচনে বিএনপি জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়েছে শুধু তা নয়। বিএনপি তাদের ভুল রাজনীতির কারনে দলীয় নেতা-কর্মী সমর্থকদের থেকেও বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। পৌর নির্বাচনে ভরাডুবি ও চরম ব্যর্থতার দায় কাঁধে নিয়ে, ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে আপনি (খালেদা) দল থেকে পদত্যাগ করুন।’

পৌর নির্বাচন নিয়ে বিএনপি ভারাপ্রাপ্ত মহাসচিবের প্রতিক্রিয়ার জবাবে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব একদিকে নির্বাচন কমিশন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অপরদিকে এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে আগামীতে সকল নির্বাচনে অংশ নেওয়ারও ঘোষণা দিয়েছেন। এই প্রতিক্রিয়ার মাধ্যমে প্রমাণিত হয় নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে বিএনপি যে অভিযোগ তুলেছে তা অযৌক্তিক।’

বিএনপি ও খালেদা জিয়া’র প্রতি আহ্বান জানিয়ে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আপনার জঙ্গি আশ্রয়ী, সন্ত্রাস আশ্রয়ী রাজনীতি পরিহার করুন। কি কারনে আপনারা জনগণ এবং দলীয় কর্মী সমর্থকদের থেকে বিচ্ছিন্ন হলেন তার কারণ অনুসন্ধান করুন। দলকে একটি গণমুখী দলে পরিণত করুন।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: