অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১২ই সফর, ১৪৪৩ হিজরী

প্রতিবাদ জানাতে টয়লেটের বাগান

Print

অনলাইন ডেস্ক : হাঙ্ক রবার। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের বাসিন্দা। তিনি চেয়েছিলেন এক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের কাছে জমি বিক্রি করতে। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তাতে বাধ সাধলে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসতে বাধ্য হন হাঙ্ক। কারণ হিসেবে কর্তৃপক্ষ জানায়, তিনি যে জমি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করতে চাইছেন তা আসলে আবাসিক। কাজেই আবাসিক জমি তিনি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করতে পারেন না।

কিন্তু হাঙ্কের আশপাশের জমিগুলো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান হিসেবেই ব্যবহার হচ্ছিল। কর্তৃপক্ষের এমন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তাই প্রতিবাদ করার পরিকল্পনা করেন জমির মালিক। সরাসরি প্রতিবাদ জানালে কোনো লাভ হবে না জানতেন, তাই ধরেন ভিন্ন পন্থা।

নিজের ৮২, মার্কেট স্ট্রিটের জমিকে ভিন্ন আঙ্গিকে সাজিয়ে তুলতে থাকেন হাঙ্ক। নানা রঙের ফুলে সাজিয়ে তুলতে থাকেন স্থানটিকে। তবে সমস্যা একটাই, ফুল গাছগুলোকে টব বা পটের বদলে কমোডের মতো বাথরুমের সামগ্রীতে সাজিয়ে তোলেন।

এমন বৈচিত্রময় বাগান দেখে তো অবাক প্রতিবেশীরা। মানুষের বর্জ্য ত্যাগের সামগ্রীতে ফুলের মতো পবিত্র জিনিসকে এক করে হাঙ্ক কি বোঝাতে চাইছেন তাও বোধোদয় হয় না। কর্তৃপক্ষের তাতে টনক নড়ে না।

হাঙ্ক তাতে দমে যাননি। ফেলে দেয়া ভাঙ্গা কিংবা বাতিল কমোড সংগ্রহ করে তা মেরামত করে রঙ-বেরঙয়ের কাগজ দিয়ে বাড়ির আঙ্গিনায় বসিয়ে দেন। আর এসব করতে গিয়েই কমোডের বাগান করার শখ দেখা দেয় তার মধ্যে।

শুধু মার্কেট স্ট্রিটেই নয়, এরপর ৮৫ ম্যাপল স্ট্রিটে থাকা তার অন্য জমিতেও এমনই বিচিত্র বাগান তৈরি করেন রবার। যা দেখে ভিন্ন অভিজ্ঞতা হয় প্রতিবেশীদের। শুধু প্রতিবেশীরাই নয়, রাস্তার পাশেই ক্লার্কসন বিশ্ববিদ্যালয় অবস্থিত! সেখানকার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদেরও দেখতে হচ্ছে ফুলের এই বিচিত্র বাগান।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: