অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২রা জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী

ফিটনেস ঘাটতিতে জাতীয় দল

Print

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট: এখনো পুরোপুরি ফিট নয় জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২০১৫ সালটা ব্যস্ত সময় পার করেছে বাংলাদেশ দল। গেল বছরটায় বাংলাদেশ দলের প্রচুর খেলা থাকায় ক্রিকেটারদের ওপর দিয়ে প্রচণ্ড ধকলও গেছে। সর্বশেষ ছিল বিপিএল।

এরপর প্রায় ১৫-২০ দিন বিশ্রাম পেয়েছেন ক্রিকেটাররা। গত রোববার থেকে শুরু হয়েছে আসন্ন জিম্বাবুয়ে সিরিজের প্রস্তুতি। আর তাই দুই দিনের ফিটনেস ক্যাম্প শেষে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়ন প্রাথমিক দলে থাকা ২৭ ক্রিকেটারকে পুরোপুরি ফিট বলতে পারছেন না। তবে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের সামনে ব্যস্ত সময় আসছে। তাতে করে খেলোয়াড়রা সেটা সামাল দেয়ার মতো অবস্থায় আছেন বলে মনে করছে জাতীয় দলের এই লংকান ট্রেনার।

সোমবার দ্বিতীয় দিনের মতো ফিটনেস ক্যাম্প হয়েছে মুশফিক-মাশরাফিদের। ফিটনেস ক্যাম্প শেষে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হন জাতীয় দলের শ্রীলংকান ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়ন।

টাইগার ক্রিকেটারদের অনুশীলন শেষে জাতীয় দলের এই ট্রেনার বলেন, ‘গত বছর ছেলেরা প্রচুর ক্রিকেট খেলেছে। এটা দলের জন্য ভালো। মাঝখানে ফিটনেস নিয়ে কাজ করা হয়নি। আমরা এটা বিবেচনায় রেখেছি। তাদের ফিটনেস মোটামুটি ভালো আছে। তাই উন্নতি করতে আমাদের যথেষ্ট কাজ করতে হবে। সবাই পুরোপুরি ফিট নেই। তবে ছেলেরা আস্তে-আস্তে উন্নতি করছে।’

এদিকে মঙ্গলবার থেকে পুরোপুরি অনুশীলনে মন দেবেন মুশফিক-মাশরাফিরা। সামনের চাপ নিতে পারবে কী না জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় তারা প্রস্তুত। অনেক ম্যাচ অনুশীলন হয়েছে। বিপিএলে অনেক ম্যাচ খেলেছে তারা। এখন কারা আপ টু দ্য মার্কে নেই সেটা আমাদের বের করতে হবে। বিপিএলের পর আমরা বিশ্রাম পেয়েছি। ঘরোয়া ক্রিকেটও শুরু হচ্ছে। যারা আমার (জাতীয় দলের মধ্যে) সঙ্গে নেই তাদের আলাদাভাবে কাজ করা উচিত। বিসিএল শুরু হচ্ছে। তাই সবারই কাজ শুরু করা উচিৎ।’

বিপিএলের তৃতীয় আসরে অনেক ক্রিকেটার ইনজুরিতে পড়েছেন। আবার কেউবা ইনজুরি নিয়েই খেলেছেন। তাই অনেক ক্রিকেটারের ফিটনেস সমস্যা রয়ে গেছে। এ প্রসঙ্গে মারিও ভিল্লাভারায়ন বলেন, ‘এটা আমার জন্য বলা খুবই কঠিন ব্যাপার। ওই আসরে (বিপিএল) অনেক ক্যাচ মিস হয়েছে, তবে সেটা হতে পারে ফিটনেসের কারণে। ফিটনেস এবং ফিল্ডিংয়ে গভীর একটা সম্পর্ক আছে। দুটি একসঙ্গেই কিন্তু আগায়। এটা দেখে উন্নতি করা দরকার।’

ছুটি কাটিয়ে ফিল্ডিং কোচ রিচার্ড হ্যালসলের মঙ্গলবার দলের সঙ্গে যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে। তাই রিচার্ড হ্যালসল ও মারিও ভিল্লাভারায়ন ছেলেদের ফিল্ডিং নিয়ে আরো বেশি কাজ করবেন বলে জানান তিনি।

এদিকে টানা ক্রিকেটের মধ্যে থাকায় বেশি ইনজুরিতে পড়েছেন পেসাররা। ফাস্ট বোলারদের উপর অনেক চাপও গেছে। মাশরাফি বিন মর্তুজা, শফিউল ইসলাম, রুবেল হোসেন ইনজুরিতে রয়েছেন। পেসারদের ইনজুরি নিয়ে ভিল্লাভারায়ন বলেন, ‘রুবেলের কাফ ইনজুরি বেশি সময় ধরে ভোগাচ্ছে। গত বছর অনেক ব্যস্ত সময় গেছে। তাতে করে পেসারদের ইনজুরি হতেই পারে। এটা শুধু বাংলাদেশেই নয়, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সব দলেই হয়ে থাকে। তাই খেলোয়াড়দের সঙ্গে আমাদের আরো বেশি করে কাজ করা দরকার। ঘরোয়া দলের সঙ্গেও কাজ করা দরকার। কারণ তাদের (পেসারদের) ঘরোয়া ক্রিকেটে বোলিং করতে হবে। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা ব্যাপার।’




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: