অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী

বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের প্রথম সম্মেলন ৪ জুন

Print

দৈনিক চিত্র রিপোর্ট : বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের প্রথম জাতীয় সম্মেলন আগামী ৪ঠা জুন শনিবার ঢাকা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষে আজ এক সংবাদ সম্মেলন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ কাশেম। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম।
বক্তব্যের শুরুতেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জাতীয় চারনেতা, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব সহ জাতির জনকের পরিবারবর্গ, শহীদ বীরমুক্তিযোদ্ধা, গণতান্ত্রিক আন্দোলনে যাঁরা শহীদ হয়েছেন তাঁদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, দিনবদলের মাধ্যমে কাঙ্খিত সংগ্রাম ও উন্নয়নে বাংলাদেশের সফল প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনা ও সুদৃঢ় নেতৃত্ব দেশে ও বিদেশে প্রসারিত ও সমাদৃত হয়েছে।
যার ফলে বাংলাদেশের সমৃদ্ধি ও উন্নয়ন বিশেষভাবে সর্বক্ষেত্রে প্রসারিত। মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক সমাজ ও রাষ্ট্রব্যবস্থা গড়ে তোলার প্রত্যয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কর্মসূচি বাস্তবায়নে দৃঢ় অঙ্গীকারাবদ্ধ। এই সম্মেলনকে সামনে রেখে বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ সম্পর্কে সামগ্রিক ধারনা দেয়া হয়।
বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের যাত্রা শুরু হয়, ১৯৯৫ সালের ১৫ আগস্ট । জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একান্ত সহচর যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত মো. বজলুর রহমান, মজিবর রহমান মাতব্বরের প্রচেষ্টায় বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ কার্যক্রম শুরু হয় ।
২০০০ সালের ৩১ মে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্ট এর সভাপতি, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগকে রাজনৈতিক সহযোগী সংগঠন হিসেবে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি প্রদান করেন। আমরা গভীর কৃতজ্ঞতা ও শ্রদ্ধা জানাই সফল রাষ্ট্রনায়ক দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনাকে।
সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ঃ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কার্যালয় ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের ৫ম তলায় ।
২০০১ সালে ৮ অক্টোবর বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ র্পুণগঠিত হয়, সভাপতি মো. বজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি আব্দুছ ছাত্তার । সংগঠনে যুক্ত হন সাবেক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অব) এ বি তাজুল ইসলাম, সাবেক এমপি আলী রেজা রাজু, বাউল সাধক শেখ ওয়াহিদুর রহমান, মজিবর রহমান মাতব্বর, রাশিদা মহিউদ্দিন , কামরুল ইসলাম, এম এ কাশেম, জি এইচ এম কাজল, শাহ আলম, মোয়াজ্জেম হোসেন আমিনুল সহ প্রমুখ ।
২০০১ সাল থেকে বর্তমান অবধি বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ঘোষিত সকল কর্মসূচি এবং জামাত বিএনপির নির্যাতনের বিরুদ্ধে , জঙ্গী যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসীর দাবীতে বহু কর্মসূচি পালন করে।
প্রতিষ্ঠালগ্নে বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের উদ্দেশ্য ছিল ১. জাতির জনকের খুনীদের গ্রেফতার, ফাঁসীর দাবীতে দেশে বিদেশে কার্যক্রম পরিচালনা. ২. মহান মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারী রাজাকার আলবদর আলশামস সহ যুদ্ধাপরাধীদের গ্রেফতার, ফাঁসীর দাবীতে কর্মসূচি পালন। ৩. জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ প্রচার ও বাস্তবায়ন ৪. রাষ্ট্রে গণতন্ত্র ও সুশাসন প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সহায়ক শক্তি হিসেবে কার্যকর পদক্ষেপ ও কর্মসূচি পালন ; ৫. জাতির জনক কন্যা বঙ্গরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতে শক্তিশালী করা ।
বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের সভাপতি যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. বজলুর রহমান গত ১৯ অক্টোবর ২০১৪ সালে, দিবাগত রাতে অসুস্থতাজনিত কারণে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)। অপর দিকে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুছ ছাত্তার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক হওয়ায় কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে পরিবর্তন আনা হয়। ১০ নভেম্বর ২০১৪ তারিখ কেন্দ্রীয় কমিটির সভায় সংগঠনের সহ সভাপতি এম এ কাশেমে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলামকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক, প্রতিষ্ঠাকালীন সাধারণ সম্পাদক, সহ সভাপতি মজিবর রহমান মাতব্বরকে কার্যকরী সভাপতি, সহ সভাপতি আনোয়ার হোসেন পাহাড়ীকে সিনিয়র সহ সভাপতি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জি এইচ এম কাজলকে মুখপাত্র করা হয়। সংগঠনকে গতিশীল করার জন্য ২০ ডিসেম্বর ২০১৪ সালে প্রথম বর্ধিত সভা জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। এই বর্ধিত সভায় ৪২ টি জেলার প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। সেই বর্ধিত সভায় জাতীয় সম্মেলনের বিষয়টি গুরুত্বের সাথে উত্থাপিত হয়েছিল।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সিনিয়র সহ সভাপতি আনোয়ার হোসেন পাহাড়ী বীরপ্রতিক, সহ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শরীফ উদ্দীন, ড.আমিনুল, মেজর (অব) আবুল কালাম মৃধা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক (মুখপাত্র) জি এইচ এম কাজল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি শেখ মো. ওমর ফারুক, কেন্দ্রীয় যুগ্ম সা. সম্পাদক লায়ন এলাহী শিমুল, প্রচার সম্পাদক ওয়াদুদ মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেল মুনশী, বদরুল আলম শাম্মী, সহিদুল হক জীবন, ঢাকা মহানগরের উত্তরের সভাপতি ইজ্ঞি. মজিবর রহমান, ঢাকা জেলার সভাপতি নিশাতুর রহমান হান্নান, অর্থ সম্পাদক আলমগীর, দপ্তর সম্পাদক নাসির, ঢাকা মহা. উত্তরের সাধারণ সম্পাদক জাবেরুল ইসলাম আপেল, গাজীপুর জেলার সভাপতি রুবেল, সা. সম্পাদক নুরুজ্জামান, কেন্দীয় নেতা এম এ আওয়াল, আলমগীর মোড়ল, জেরিন নীপা, মহিলা সম্পাদিকা মিমি করিম প্রমুখ।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: