অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৭ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরী

‘বাবা-মা খেয়াল না রাখায় সন্তান মাদকাসক্ত হচ্ছে’

Print

দৈনিক চিত্র রিপোর্ট : হতাশা এবং অতিরিক্ত চাপের কারণে ছেলেমেয়েরা বিপথগামী হয় বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। বাবা-মায়েরাও সন্তানদের সঠিকভাবে খেয়াল করেন না, এসব কারণে ছেলেমেয়েরা ধুমপানসহ নানা রকম মাদকে আসক্ত হয়। তামাকজাত পণ্যের নিয়ন্ত্রণে সরকারের পাশাপাশি সবাইকে এগিয়ে আসারও আহ্বান জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

রোববার (২৯ মে) দুপুরে সিরডাপ মিলনায়তনে তামাক নিয়ন্ত্রণ সাংবাদিকতা পুরস্কার ২০১৬ প্রদান এবং বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস উদযাপন উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবসের এ বছরের প্রতিপাদ্য ‘প্লেইন প্যাকেজিং- তামাক নিয়ন্ত্রণে আগামী দিন’ স্লোগানকে সামনে রেখে প্রজ্ঞা (প্রগতির জন্য জ্ঞান) এবং আত্মা (এন্টি টোব্যাকো মিডিয়া এলায়েন্স) যৌথভাবে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

মো. নাসিম বলেন, ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের পড়াশোনার জন্য এমনভাবে চাপ দেওয়া হয় যেন তারা ব্যারিস্টার হবে। এসব ছেলেমেয়েরা পরবর্তীতে হতাশা থেকে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। আবার অনেক বাবা-মা সন্তানদের প্রতি খেয়াল না করে ক্লাব পার্লার নিয়ে ব্যস্ত থাকেন, এসব পরিবারের ছেলেমেয়েরাও মাদকে জড়িয়ে পড়ে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষিত সমাজকে তামাক নিয়ন্ত্রণে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। কিন্তু শিক্ষিত লোকজন ধুমপান করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেরও দেখি প্রকাশ্যে ধুমপান করে। তামাকজাত পণ্য আমাদের ক্ষতি করে, উপকার করে না- এটা সবাইকে বুঝতে হবে।

আমি কখনও সিগারেট খাইনি, আমার পরিবারের কেউও খায় না বলে এসময় মন্তব্য করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে ‘প্রজ্ঞা তামাক নিয়ন্ত্রণ সাংবাদিকতা পুরস্কার ২০১৬’ এর বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন মন্ত্রী। প্রিন্ট/অনলাইন ও সম্প্রচার মাধ্যমের আট প্রতিবেদক এবছর এই পুরস্কার জিতেছেন।

এবছরের পুরস্কার বিজয়ীরা হলেন- বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম এর লালমনিরহাট ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট খোরশেদ আলম সাগর ও সিলেটের ডাকের সাংবাদিক সুনীল সিংহ।

সেরা প্রিন্ট/অনলাইন মিডিয়া বাংলা বিভাগে বিজয়ী হয়েছেন দৈনিক জনকণ্ঠের হামিদ-উজ-জামান মামুন এবং দৈনিক নয়াদিগন্তের জিয়াউল হক মিজান। সেরা প্রিন্ট/অনলাইন মিডিয়া ইংরেজি বিভাগে দি ডেইলি ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের দৌলত আক্তার মালা এবং দি ডেইলি স্টারের এস. দিলীপ রায় বিজয়ী হয়েছেন।

সেরা টিভি রিপোর্টে বৈশাখী টেলিভিশনের রিতা নাহার এবং দেশ টেলিভিশনের ঝর্ণা রায় পুরস্কার লাভ করেন।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: