অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২রা জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী

বাসাবাড়িতে আর গ্যাস সংযোগ নয়: অর্থমন্ত্রী

Print

দৈনিক চিত্র রিপোর্ট: বাসাবাড়িতে রান্নার কাজে আর গ্যাস সংযোগ দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেছেন, গ্যাস অত্যন্ত মূল্যবান সম্পদ। তাই রান্নার কাজে পাইপ লাইনে আর গ্যাস ব্যবহার চলবে না। এ নিয়ে আন্দোলন-চিৎকার করে কোনো লাভ হবে না। মূল্যবান সম্পদ দিয়ে ভাত-ডাল রান্না নয়। এত মূল্যবান সম্পদ রান্নার জন্য ব্যবহার করার দরকার নেই। রান্নার জন্য অন্য কিছু ব্যবহার করা যেতে পারে। গতকাল পেট্রোবাংলা মিলনায়তনে জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। অর্থমন্ত্রী বলেন, এখন থেকে সিলিন্ডারে গ্যাস ব্যবহারে আমরা উৎসাহ দিচ্ছি। এলপিজি ব্যবসা মনোপলি হতে দেয়া হবে না। এলএনজি সরকার আমদানি করতে যাচ্ছে। এ গ্যাস শিল্প কারখানায় ব্যবহার করা হবে। এছাড়া, গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলনেও সরকার জোর দিচ্ছে। মানব সম্পদের উপর জোর দিতে হবে পাওয়ার সেক্টরের উন্নয়নের জন্য। নবায়নযোগ্য জ্বালানির উপর গুরুত্ব দেয়া উচিত বলে তিনি মনে করেন। অর্থমন্ত্রী আরো বলেন, বিদ্যুৎ ছাড়া উন্নয়ন সম্ভব নয়। বিদ্যুৎ সেক্টরের উপর দেশ নির্ভর করে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই ইলাহী চৌধুরী বীরবিক্রম কর্মকর্তাদের নতুন নতুন সৃজনশীল চিন্তা করার প্রতি আহŸান জানিয়ে বলেন, নতুন চিন্তা দিয়ে চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা সম্ভব। নিজ দেশের বাইরে বিশ্বে অন্যান্য দেশেও এধরনের অ্যাসেট কিনতে হবে আমাদের। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, নিজেদের প্রয়োজনে তেল উৎপাদন করে জ্বালানি নিরাপত্তা দেশ হিসেবে প্রকাশ করতে যাচ্ছি। তিনি বলেন, শিল্পে সময়মতো গ্যাস দিতে পারি, তাহলে টেক্সটাইলে আমরা এক নম্বর দেশে পরিণত হবো। আগামী দু-এক বছরের মধ্যে জ্বালানি নিরাপত্তায় ব্যাপক পরিবর্তন আসবে বলে তিনি আশা করেন। তিনি আরো বলেন, মানব সম্পদে ঘাটতি রয়েছে। প্রফেশনাল তৈরি করতে হবে। তিনি বলেন, এলপিজি প্রাইভেট খাতে চলে এসেছে। এখন পাবলিক (সরকারি) খাতেও আসতে চাই। জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব নাজিম উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান ইশতিয়াক আহমেদ, বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি)’র চেয়ারম্যান মাহমুদ রেজা খান আলোচনায় অংশ নেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন হাইড্রোকার্বন ইউনিটের মহাপরিচালক হারুনুর রশিদ খান।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: