অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১১ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী

ভালোবাসার রঙে রঙিন একুশে গ্রন্থমেলা

Print

নিজস্ব প্রতিবেদক : ফাগুনের আগুন শেষে ভালোবাসার রঙে রাঙলো অমর একুশে গ্রন্থমেলা। ভালোবাসার হাওয়ায় রঙিন হয়ে উঠলো বইমেলা। ভালোবাসার শেষ বিকেলে জমলো মেলা। ভালোবাসা আর বই যেন একইসূত্রে গাঁথা। প্রিয়জনকে না বলা কথা লেখক কলমে বলে দেওয়ায় বইয়ের গুরুত্ব অনেক। আর সেজন্যই প্রেমিকের মন খোঁজে বইয়ের আশ্রয়। প্রিয় পঙক্তিমালা প্রিয়জনের হাতে তুলে দিতে প্রেমিক-প্রেমিকাদের ভিড় জমে বইমেলায়। বিশ্ব ভালবাসা দিবস উপলক্ষে বইমেলায় ছিল উপচেপড়া ভিড়। চারটি প্রবেশ দ্বার দিয়ে বানের ঢলের মত মানুষ প্রবেশ করছে মেলা চত্বরে। আগের দিন পহেলা ফাল্গুন আর ভালোবাসা দিবস- এ দু-দিনের বিক্রি নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন প্রকাশকরা।
মনের কথাগুলো কবির লেখনিতে ভর করে প্রেমিককে জানান দেয় ভালোবাসার। নতুন বই আর লাল গোলাপের মিশ্রণে ভালোবাসা পায় নতুন মাত্রা। সঙ্গে প্রিয়জনকে অনেকেই করেন প্রেম নিবেদন। তাই বিশ্ব ভালবাসা দিবসে বইমেলাই হয়ে ওঠে প্রধান গন্তব্য। আগের দিনের বসন্ত উৎসবে মেতে বইমেলাকে রাঙিয়ে তুলেছিল তরুণ-তরুণীরা। গতকালও ভালবাসায় ভিজলো বইমেলা। মেলার শুরু থেকেই জমে উঠলো ভালোবাসার মানুষের পদচারণায়। ভালবাসা দিবস উপলক্ষে বইমেলার স্টলে স্টলে চলে এসেছে উপন্যাস, গল্প, কবিতার নানান বই। প্রতিটি স্টলে ছিল বইপ্রেমীদের ভিড়। যাচাই বাছাই করে তাদের পছন্দের লেখকের বইটি কিনতে দেখা গেছে। পাঞ্জেরী প্রকাশনীর বিক্রেতা জাবেদ আনজুম বলেন, ভালোবাসা দিবসে ক্রেতা-দর্শনার্থীর ভিড় অনেক। বেচাকেনাও ভালো হয়েছে। দম ফেলানোর সময় পাইনি। কমিকের বই বেসিক আলী বেশি বিক্রি হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, আজকের দিনটি তো কথা বলা আর ভালোবাসা আদান-প্রদানের দিন। এমন দিনে বই পড়ার সময় কই! তারপরও বেচাবিক্রি বেশ ভালো। পহেলা ফাল্গুনের দিনও ভালো বিক্রি হয়েছে। মিরপুর থেকে আসা নাদিয়া আক্তার বলেন, ভালোবাসা দিবসে প্রিয় মানুষের সঙ্গে সারাদিন ঘুরে বেড়ানো। পরে বইমেলায় এসে বই কেনা- যেন এক অলিখিত নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। বইকেনা আর ঘুরে বেড়ানো ছাড়া এদিন আর সময় কাটে না। কি কি বই কিনেছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেবল আসলাম মেলায়। প্রিয় লেখকের বই কিনবো, প্রিয় মানুষকে উপহার দেওয়ার জন্য। অনেকে মেলায় এসেছেন বইয়ের ভালোবাসার টানে। তেমনই কথা হলো তুহিন খান নামের একজনের সঙ্গে। তিনি বলেন, ভালোবাসার মানুষ নেই বলে কি আর মেলায় আসা যাবে না ? অন্যরা আজ প্রিয় মানুষকে ভালোবাসার কারণে মেলায় আসলেও আমি এসেছি বইয়ের ভালোবাসায়। কাউকে উপহার না দিলেও পছন্দের লেখকের বই কিনবো। পুরো বছর বইমেলার জন্য অপেক্ষা করে থাকি। পছন্দের বই কিনবো বলে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: