অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ১১ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১০ই জমাদিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী

রাজশাহীতে এএসআই ঘুষ নেওয়ার ভিডিও ভাইরাল

Print

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীর তাহেরপুর পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপপরিদর্শক হারুনুর রশীদের ঘুষ নেওয়ার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। তাকে সাময়িকভাবে জেলা পুলিশ কর্তৃক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এএসআইয়ের ফাঁড়ি থেকে প্রত্যাহারের সাথে সাথেই এলাকাবাসী তার নানা অপকর্মের বিষয়ে মুখ খুলতে শুরু করেছেন। এএসআই হারুনের চাঁদাবাজি, মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আটকবাণিজ্য ও মাদকবাণিজ্যে তার সম্পৃক্ততার অনেক কাহিনী বের হয়ে আসছে। তবে টাকা গুনে প্রকাশ্যে ঘুষ নেয়ার ভিডিওটি লকডাউন সময়ের বলে জানা গেছে। লকডাউনে দোকানপাট খুললেই এএসআই হারুনকে ঘুষ দেয়া বাধ্যতামূলক ছিল। তবে এএসআই হারুণ অবশ্য এ নিয়ে এখন কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, লকডাউনের সময় বাগমারা অঞ্চলের সাজুড়িয়া গ্রামের মাদক ব্যবসায়ী লেদ আজাদকে হেরোইন এবং ইয়াবাসহ আটক করার পরও মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে তাকে ছেড়ে দেন এএসআই হারুন। এছাড়াও রামরামা হাজরাপুকুর গ্রামের সুবদের ছেলে গাঁজা ব্যবসায়ী সনাতন দাসকে মাদকসহ আটকের পর টাকা নিয়ে ছেড়ে দেন এবং তার কাছ থেকে জব্দকৃত মাদক আরেক ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করে দেন, এমন অভিযোগও পাওয়া গেছে।

এদিকে ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা গেছে, করোনাকালে লকডাউনের সময় তাহেরপুর বাজারের একটি মোবাইল ফোনের দোকানে ঢুকে ৩ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন এএসআই হারুন। জলন্ত সিগারেট মুখে রেখে সে দোকানদারের সঙ্গে দরদারের পর দুই হাজার টাকা ঠিক হয়। পরে টাকা গুণে দেখে সে আরও এক হাজার টাকা দাবি করেন। পুরো টাকা নিয়েই সে এক পর্যায়ে দোকান ত্যাগ করেন।

এ বিষয় সম্পর্কে জানতে চাইলে রাজশাহীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইফতে খায়ের আলম জানান, এএসআই হারুনকে আপাতত পুলিশ সুপারের নির্দেশে তাহেরপুর ফাঁড়ি থেকে লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে। তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্তও করা হয়েছে। তদন্তের পর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: