অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১১ই সফর, ১৪৪৩ হিজরী

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে থাকবে ভিয়েতনাম

Print

নিজস্ব প্রতিবেদক : রোহিঙ্গা সমস্যার কার্যকর ও স্থায়ী সমাধানের লক্ষ্যে বাংলাদেশের পাশে থাকার কথা জানিয়েছেন ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট ত্রান দাই কুয়াং বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল নিজ কার্যালয়ে ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।
শেখ হাসিনা বলেন, এই অঞ্চলের স্থিতিশীলতা ও শান্তির জন্য হুমকি যে রোহিঙ্গা ইস্যু, সেটা নিয়েও আমরা আলোচনা করেছি। এই সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধানের জন্য আমি ভিয়েতনামের সহযোগিতা চেয়েছি। রাষ্ট্রপতি ত্রান দাই কুয়াং কার্যকর ও স্থায়ী সমাধানের জন্য সমর্থন জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ভিয়েতনাম আমাদের কাছের প্রতিবেশী। শান্তি ও উন্নয়নকে এগিয়ে নিয়ে এই দুই দেশ এক উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বিখ্যাত নেতা হো চি মিন জনগণের স্বাধীনতার জন্য তাদের জীবন দিয়েছেন। নিপীড়ক বাহিনীর বিরুদ্ধে ভিয়েতনামী মানুষের লড়াই আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধে উদ্বুদ্ধ করেছে। এই দুই দেশের মানুষ একই ঐতিহ্য, মূল্যবোধ লালন করেন।
শেখ হাসিনা বলেন, ষাটের দশকে শিক্ষাজীবনে আমি নিজে ভিয়েতনাম যুদ্ধের প্রতিবাদ র‌্যালিতে অংশ নিয়েছি। রাষ্ট্রপতি ত্রান দাই এবং আমি আমাদের অফিসিয়াল আলাপ মাত্র শেষ করেছি। আলোচনার সময় আমরা সহযোগিতার নতুন এলাকাগুলো চিহ্নিত করেছি।
এর আগে ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছালে শেখ হাসিনা তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। দুই নেতার মধ্যে একান্ত বৈঠক শেষে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক শুরু হয়। বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন শেখ হাসিনা এবং ভিয়েতনামের পক্ষে তাদের রাষ্ট্রপ্রধান ত্রান দাই কুয়াং। দুই দেশের প্রতিনিধিদলের মধ্যে অনুষ্ঠিত দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর দুই নেতার উপস্থিতিতে তিনটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে সহযোগিতার বিষয়ে ২০১২ সালের ২ নভেম্বর দুই দেশের মধ্যে যে সমঝোতা স্মারক হয়েছিল, এবার তা নবায়ন করা হয়েছে। মেশিনারি ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে সহযোগিতার জন্য বাংলাদেশের শিল্প মন্ত্রণালয় এবং ভিয়েতনামের শিল্প ও ব্যবসা মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমঝোতা স্মারক এবং সাংস্কৃতিক বিনিময় কর্মসূচি এগিয়ে নিতে বাংলাদেশের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় এবং ভিয়েতনামের সংস্কৃতি, ক্রীড়া এবং পর্যটন মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।
বাংলাদেশের মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এবং ভিয়েতনামের কৃষি ও পল্লী উন্নয়নমন্ত্রী নুয়েন জুয়ান সেউয়ং দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতার বিষয়ে নবায়নকৃত সমঝোতা স্মারকে সই করেন। মেশিনারি ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে সহযোগিতার জন্য বাংলাদেশের শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ আবদুল্লাহ এবং ভিয়েতনামের শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ভাইস মিনিস্টার কাও চুয়ক হুয়াং একটি সমঝোতা স্মারকে সই করেন। আর সাংস্কৃতিক বিনিময় কর্মসূচি এগিয়ে নিতে বাংলাদেশের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব ইব্রাহীম হোসেন খান ও ভিয়েতনামের সংস্কৃতি, ক্রীড়া ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি মিনিস্টার ড্যাং থাই বিচ লিয়েন তৃতীয় সমঝোতা স্মারকে সই করেন।
ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট ত্রান দাই কুয়াং গত রোববার তিন দিনের সরকারি সফরে বাংলাদেশে আসেন। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের আমন্ত্রণে দুই দেশের মধ্যে অর্থনীতি, বাণিজ্য, বিনিয়োগ, কৃষি, প্রতিরক্ষা, নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদারের লক্ষ্যে তিনি বাংলাদেশ সফরে এসেছেন।
গত ১৪ বছরে এটি ভিয়েতনামের কোনো প্রেসিডেন্টর প্রথম বাংলাদেশ সফর। ২০০৪ সালে দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট ত্রাই দাক লুয়ং সর্বশেষ বাংলাদেশ সফর করেন। ভিয়েতনাম ১৯৭১ সালে স্বাধীন বাংলাদেশকে প্রথম দিকে স্বীকৃতিদানকারী দেশগুলোর অন্যতম।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: