অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৫ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী

শচীন কন্যার প্রেমে দিওয়ানায় গ্রেপ্তার মেদিনীপুরের দেবকুমার

Print

অনলাইন ডেস্ক : ‘পাগল’ প্রেমিকের কান্ডে অতীষ্ঠ হয়ে উঠেছিল শচীন টেন্ডুলকার কন্যা সারার জীবন। ভারতের মুম্বাইয়ে বসেও পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব মেদিনীপুরের এক যুবক তাকে উত্যক্ত করতেন। শচীন কন্যার ফোন নম্বর জোগাড় করেছিলেন পূর্ব মেদিনীপুরের মহিষাদলের বাসিন্দা দেবকুমার মাইতি। এরপর থেকেই ফোনের পর ফোন। শচীন কন্যা সারাকে প্রেম নিবেদন করতে শুরু করেন। নানাভাবে নানা সময়ে চলতো প্রেম নিবেদন। শেষপর্যন্ত বিয়ের প্রস্তাব দিতেও দ্বিধা করেনি ওই যুবক।

এভাবে নিয়মিত ফোন করে সারাকে উত্যক্ত করতে থাকেন তিনি। পেশায় শিল্পী দেবকুমারের পাগলামি এতোটাই বেড়ে গিয়েছিল যে, শচীনের অফিসেও ফোন করেন তিনি। সেখানে একই কথার পুনরাবৃত্তি। এভাবেই চলছিল। এক পর্যায়ে বাধ্য হয়ে তার বিরুদ্ধে মুম্বাইয়ের বান্দ্রা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন শচীন টেন্ডুলকর। মোবাইল টাওয়ারের লোকেশনের সূত্র ধরে দেবকুমারকে খুঁজে বের করে মুম্বাই স্পেশাল পুলিশ। রোববার আন্দুলিয়া থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সংবাদমাধ্যমের কাছে দেবকুমার স্বীকার করেছেন, সারাকে ভালবাসেন তিনি। বিয়ে করতে চান। নিজ হাতে সারার নামের ট্যাটুও এঁকেছেন। তার সঙ্গেই জীবন কাটানোর স্বপ্ন দেখেছিলেন। তাই গ্রেপ্তারের পরও তার বিশেষ কোনো ভাবলেশ নেই। দেবকুমারের পরিবারের দাবি, কয়েক মাস ধরে মানসিক অবসাধে ভুগছেন তিনি। সম্প্রতি এক প্রতিবেশীর কাছ থেকে সারার নম্বর পান। এরপর থেকেই এমন কান্ড করে আসছিলেন।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.