অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৬ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরী

সন্ত্রাসীর লাশ দাফনে ফরাসি মুসলিমদের অস্বীকৃতি

Print

অনলাইন ডেস্ক: ফ্রান্সে সন্ত্রাসীর মৃতদেহ দাফনে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন মুসলিমরা। তারা বলছেন, সন্ত্রাসীরা যা করেছে তা ইসলামসম্মত নয়। তাদের কর্মকাÐের সঙ্গে ইসলামের কোনো সম্পর্ক নেই। তাই তারা ফ্রান্সে ধর্মযাজক জ্যাকস হ্যামেলকে হত্যাকারী দুজনের একজন আদেল কেরমিচের মৃতদেহ দাফনে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। এ খবর দিয়ে অনলাইন স্কাইনিউজ বলেছে, ২৬শে জুলাই ফ্রান্সের উত্তরাঞ্চলে ১৯ বছর বয়সী আদেল ও আবদেল মালিক পেতিতজেন (১৯) হত্যা করে যাজক জ্যাকস হ্যামেলকে। মারাত্মক আহত করে একজনকে। এরপর তারা চার্চের নানদের মানবঢাল হিসেবে ব্যবহার করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে পুলিশের গুলিতে নিহত হয়। এখন তাদের একজন আদেলের মৃতদেহ দাফনে অস্বীকৃতি জানাচ্ছেন স্থানীয় মুসলিমরা। সেইন্ট ইনিয়েন ডু রুভরে এলাকার মুসলিমদের সাংস্কৃতিক সংগঠনের সভাপতি ও একটি মসজিদের ইমাম মোহাম্মদ কারাবিলা বলেছেন, নিহত আদেলের সঙ্গে আমরা ইসলামকে কলঙ্কিত করতে চাই না। তার লাশ দাফনের জন্য প্রস্তুত করা বা তা দাফনে আমরা অংশ নেব না। এ মতের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন ওই শহরের অন্য মুসলিমরাও। তাদের একজন ২৫ বছর বয়সী টেকনিশিয়ান খালিদ আল আমরানি। তিনি বলেছেন, আদেলের লাশ দাফনের বিষয়ে যে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে সেটাই স্বাভাবিক। সে যা করেছে তা গুনাহের কাজ। সে আর আমাদের সমাজের অংশ নয়। মেয়রের অফিস থেকে এখন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে যে, আদেলের লাশ শহরেই দাফন করা হবে কিনা।
উল্লেখ্য, যাজক জ্যাকস হ্যামেলকে যখন চার্চের ভেতর গলা কেটে হত্যা করা হয় তখন সেখানে উপস্থিত ছিলেন দুজন নান। তারা বলেছেন, এ নৃশংসতা চালানোর সময় ঘাতকদের একজন হাসছিল। সিস্টার হুগুয়েতে পেরন লা ভিয়ে পত্রিকাকে বলেছেন, দ্বিতীয় ঘাতক আমার দিকে তাকিয়ে হাসতে থাকে। তা দেখে মনে হয়েছিল যে, সে খুব খুশি হয়েছে। এ অবস্থা দেখে সিস্টার হেলেনের মাথা ঘুরে যায়। তাকে বসতে বলা হয়। এক পর্যায়ে দু’ ঘাতক ধর্ম নিয়ে আলোচনা শুরু করে। এ সময় ওই দু’সিস্টার শান্তির কথা বলেন। ঘাতকদের একজন জবাবে বলে, শান্তি, হ্যাঁ আমরা তো ওটাই চাই। সিরিয়ায় যতদিন বোমা হামলা হবে ততদিন আমাদের হামলাও অব্যাহত থাকবে। প্রতিদিনই এমন হামলা হতে থাকবে। যখন তোমরা থামবে তখন আমরাও থেমে যাবো।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: