অনলাইন নিউজপেপার সাইট ঢাকা, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১২ই সফর, ১৪৪৩ হিজরী

সাঘাটায় আধা কিলোমিটার সড়কে ২০ হাজার মানুষের ভোগান্তি

Print

সাঘাটা (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি : গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলায় মাত্র আধা কিলোমিটার কাঁচা সড়কের কারনে ভোগান্তি ৭ টি গ্রামের ২০ হাজারের অধিক মানুষের । গ্রামগুলো হলো বাদিনারপাড়া,আমদিরপাড়া,আব্দুল্লাপাড়া,ছিলমানেপাড়া,শিমুলবাড়ী,কামালেপাড়া ও থৈকরপাড়া । সম্প্রতী সড়কটির একটি কালভাট ভেঙে গেছে । ফলে ভোগান্তির নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। সড়কটির নাম বারকোনা-বাদিনারপাড়া সড়ক। এটি সাঘাটা উপজেলার জুমারবাড়ী ইউনিয়নের ৭ গ্রামের মানুষের চলাচলের একমাত্র রাস্তা। প্রতিদিন কৃষিপন্য সহ বারোকোনা ও বাদিনাপাড়া সাথে গ্রামের মানুষের যোগাযোগের এটিই একমাত্র মাধ্যম। স্কুল পড়–য়াদের প্রতিদিনের একমাত্র ভরসাও ওই সড়কটি। শুকনা মৌসুমে কষ্ট স্বীকার করে চললেও বর্ষায় সড়ক কাঁদা হয়ে যায়। এসময় পন্যপরিবহনের সুযোগ থাকে না। স্কুলগামীদের কাঁদাপায়েই স্কুলে যেতে হয়।
সড়কটির বাদিনারপাড়া গ্রামে বাঙালি নদীর সেতু সংলগ্ন একটি কালভার্ট ভেঙে গেছে দেড়মাস । উপজেলা প্রকৌশলী অধিদপ্তর এটি সংস্কারের কোন উদ্যোগ নিচ্ছে না । ফলে ভোগান্তি নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে।
সরেজমিন গেলে শিমুলবাড়ীর আ.রশিদ জানায়, বাদিনারপাড়া গ্রামে দেড় মাস আগে মাটিবোঝাই একটি যন্ত্র চালিত যান চলাচলের সময় কালভাটের একাংশ ভেঙে যায়। এরপর থেকে মানুষকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
বারোকনা বাজারের মুদি দোকানদার আ. হান্নান এর বাড়ী বাদিনাপাড়া। তিনি জানান,রাতে দিনে প্রতিনিয়তই ব্রীজটি পার হতে হয়। অন্ধকারে পার হতে ভয় হয়। একটু অসাবধান হলেই হাত পা ভেঙ্গে যাবে। তাছাড়া সড়কটি কাঁচা থাকায় বর্ষার দিনে আমাদের অবর্নণীয় দূর্ভোগ পোহাতে হয়।
সাঘাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার উজ্জ্বল কুমার ঘোষ জানান, জনভোগান্তির কথা আমাকে আগে কেউ জানায়নি। । স্থানীয়রা ভাঙা কালভার্টটি মেরামত ও রাস্তাটি পাকাকরণের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ।
জুমারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রোস্তম আলী আকন্দ জানান, উপজেলা প্রকৌশলীকে রাস্তা পাকাকরন ও কালভাট সংস্কারের কথা বলেছি। । তিনি সামনে এডিপির (বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি) অর্থায়নে রাস্তা ও কালভার্টের কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।
উপজেলা প্রকৌশলী ছাবিউল ইসলাম জানান, ভাঙা কালভার্ট মেরামত ও রাস্তাটি পাকাকরণের জন্য স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ে একটি প্রকল্প প্রস্তাব আকারে পাঠানো হয়েছে। প্রস্তাবটি পাস হলে টেন্ডারের মাধ্যমে কালভার্টের মেরামত ও রাস্তাটি পাকাকরণ করা হবে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

%d bloggers like this: